নয়াদিল্লি : মোদী সরকারের দ্বিতীয় দফায় বেশ কয়েকটা চমক ছিল৷ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে অমিত শাহ ও বিদেশ মন্ত্রকে এস জয়শঙ্করের নাম ঘোষণা সেই চমকের প্রথম ধাপ ছিল৷ এবার সামনে এল আরও কিছু নতুন নাম ও চমক৷

২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বালাকোট এয়ারস্ট্রাইক করে পাকিস্তানের ভিত নড়িয়ে দিয়েছিল ভারতীয় বায়ুসেনা৷ এই এয়ারস্ট্রাইকের মাস্টারমাইণ্ড ছিলেন সামন্ত গোয়েল৷ যাকে নরেন্দ্র মোদী নিয়ে এলেন ‘র’ (Research and Analysis Wing R&AW)-এর দায়িত্বে৷

আরও পড়ুন : বিলাসবহুল গাড়ি নয়, বাসেই নিত্যদিন যাতায়াত রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বিধায়কের

চমকের এখনও বাকি রয়েছে ১৯৮৪ সালের ব্যাচের পুলিশ অফিসার ও সামন্ত গোয়েলের ব্যাচমেট অরবিন্দ কুমারকে দেওয়া হয়েছে আইবি প্রধানের দায়িত্ব৷ তবে এটাই অরবিন্দ কুমারের আসল পরিচয় নয়৷ কাশ্মীর বিশেষজ্ঞ হিসেবে পরিচিত বর্ষীয়ান আইপিএস অফিসার অরবিন্দ উপত্যকাকে চেনেন হাতের তালুর মত করে৷

নিয়োগ কমিটি এই দুই নামে শীলমোহর দেওয়ার জন্য প্রস্তাব পাঠায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে৷ নিয়োগ কমিটির প্রধান নরেন্দ্র মোদী তড়িঘড়ি সেই প্রস্তাবে সমর্থন জানান ও তা কার্যকর করতে অনুমতি দেন৷ এই দুই আইপিএস অফিসারই ১৯৮৪ সালের ব্যাচের৷ দুজনেই ডিরেক্টর জেনারেল হিসেবে কাজ করেছেন৷ পঞ্জাব ক্যাডার থেকে গোয়েল ও অসম মেঘালয় ক্যাডারের অফিসার অরবিন্দ কুমার৷

আরও পড়ুন : ইমাম, মোয়াজ্জেমদের মতোই এবার রাজ্যে পুরোহিত ভাতা দেওয়ার ইঙ্গিত মমতা প্রশাসনের

বর্তমান র প্রধান অনিল কুমার ধাসমানাকে স্থলাভিষিক্ত করলেন সামন্ত গোয়েল৷ আড়াই বছর পর এই পদের প্রধানে পরিবর্তন আসল৷ অন্যদিকে অরবিন্দ কুমার রাজীব জৈনকে সরিয়ে আইবি প্রধান হলেন৷ আইবির হয়ে মাও অপারেশনসের কাজ করার পর স্পেশাল ডিরেক্টর পদে থেকে কাশ্মীরের দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন অরবিন্দ কুমার৷

২০১৬ সালে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ও ২০১৯ সালে বালাকোট এয়ারস্ট্রাইকের মাথা ছিলেন সামন্ত গোয়েল৷ ৯০-য়ের দশকে তিনি পরিচিত ছিলেন পাকিস্তান বিশেষজ্ঞ হিসেবে৷ ওই দশকেই পঞ্জাবে সন্ত্রাস দমনে বিশেষ ভূমিকা নেন তিনি৷
জুনের ৩০ তারিখ এই দুই আধিকারিক নিজের দায়িত্ব নেবেন বলে খবর৷