মুম্বই: গোটা দেশ করোনা আতঙ্কে রয়েছে। দিনে দিনে পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাচ্ছে। আতঙ্কিত গোটা দেশের মানুষ। এরই মধ্যে খারাপ খবর অভিনেতা সলমনের বাড়িতে। চলে গেলেন ভাইপো আবদুল্লা খান। মাত্র ৩৮ বছর বয়সে অকাল প্রয়াণ মুম্বইয়ের জনপ্রিয় এই বডি বিল্ডারের। হঠাত তাঁর প্রয়াণে শোকের ছায়া নেমে এসেছে খান পরিবারে। ইতিমধ্যে ভাইপো আবদুল্লা খানের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ সলমন।

তাঁর সোশ্যাল মিডিয়াতে আবদুল্লার ছবি প্রকাশ করে তিনি জানান, ‘আমরা তোমাকে সব সময় ভালবাসব’। জানা গিয়েছে, গত কয়েকদিন ধরেই শ্বাসনালীতে সংক্রমণ নিয়ে হাসপাতালে ভরতি ছিলেন আবদুল্লা। সোমবার দুপুরের পর থেকেই অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে। সোমবার রাতে মুম্বইয়ের একটি হাসপাতালে মৃত্যু হন তাঁর। করোনা ভাইরাসের কারণে ২১ দিনের লক ডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

আর এই সুযোগে পানভেলের বাগান বাড়িতে রয়েছেন সলমন খান। বাবা, মা, ভাই, বোনদের নিয়ে সেখানেই আপাতত রয়েছেন বলিউড ভাইজান। সেখানে ভাইপোর মৃত্যুর খবর পৌঁছয় খান পরিবারের কাছে। কিন্তু এই মুহূর্তে আবদুল্লা খানের শেষকৃত্যে খান পরিবা সামিল হবেন কিনা তা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে। কারণ যেখানে এখন খান পরিবার রয়েছে সেখান থেকে আসাটা খুবই কঠিন।

অন্যদিকে আবদুল্লা খানের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন সলমনের বান্ধবী ইউলিয়া। সলমনের বাড়িতে যাতায়াত ছিল তাঁর। সেই সূত্রে আবদুল্লার সঙ্গে সম্পর্ক ছিল। সেই স্মৃতি উসকে ইউলিয়া লেখেন, তাঁর কথা সব সময় মনে রাখবেন তিনি।

জীবনের চলার পথে বাধা বিপত্তি টপকে কীভাবে এগিয়ে চলতে হয়, আবদুল্লার কাছ থেকে শিখেছিলেন তিনি। খান পরিবার এবং ইউলিয়ার ছাড়াও আবদুল্লার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বলিউডে। একাধিক অভিনেতা-অভিনেত্রীদের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল তাঁর। সেই সূত্রেই শোকপ্রকাশ করেছেন একাধিক অভিনেতা-অভিনেত্রীরা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।