মুম্বই- বিগবসে প্রত্যেক সিজনেই উঠে আসে বিতর্কিত কিছু ঘটনা। ঘরের সদস্যের সারা সপ্তাহ জুড়ে লেগে থাকা বচসা আর কাদা ছোড়াছুড়ির পরে উইকেন্ডে আসেন সলমন খান। প্রত্যেক প্রতিযোগীকে এই দিনটায় পাঠ পড়ান তিনি। কিন্তু এবার খোদ সলমনই বিগবসের মঞ্চে কেঁদে ফেললেন।

এবছর বিগবসের সঙ্গে ১০ বছর পূর্ণ করলেন সলমন। আর তাই বিগবসের পক্ষ থেকে তাঁর জন্য রাখা ছিল আকর্ষণীয় সারপ্রাইজ। বিগত ১০ বছরে বিগবসে সলমনের যাত্রাপথের বিভিন্ন অংশ একটি ভিডিও ক্লিপের মাধ্যমে দেখানো হয়। এই ভিডিওর ক্যাপশনে ছিল, ১০ বছরের সফর পূর্ণ করায় বিগবস সলমন খানকে দিল এই সারপ্রাইজ।

এই ভিডিও ক্লিপ দেখেই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন সলমন। টানা ১০ বছরের যাত্রা এক মুহূর্তে দেখে কেঁদেও ফেলেন তিনি। এই সারপ্রাইজের জন্য বিগবসকে ধন্যবাদও জানান সলমন।

প্রসঙ্গত এই উইকেন্ড কা ওয়ারে রয়েছে বিশেষ চমক। এই এপিসোডে সলমন খান কয়েকজন সাহায্যকারীকে নিয়ে বিগবসের ঘরে ঢুকে পড়বেন। সলমন নিজেই এবার শৌচালয়, লিভিং রুম ও রান্নাঘরে ঢুকে সমস্ত কিছু পরিষ্কার করবেন। এই দেখে স্বাভাবিকভাবেই ঘরের সদস্যরা অপ্রস্তুত হয়ে পড়বেন। কিন্তু প্রত্যেককেই তখন বেডরুমে আটকে দেওয়া হবে।

ঘরের বিভিন্ন জায়গা অপরিচ্ছন্ন করে রাখায়ই এই পদক্ষেপ করেন সলমন। ফলে পরে তাঁর কাছে ক্ষমা চাইতে দেখা যাবে সদস্যদের।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I