ফাইল ছবি

নয়াদিল্লিঃ  আগামী ৩০ এবং ৩১ মে ৪৮ ঘন্টার ধর্মঘট ডেকেছে ব্যাংক ইউনিয়নগুলি। ব্যাংকের পাশাপাশি বন্ধ থাকবে সমস্ত এটিএম গুলিও, এমনটাই আশঙ্কা করা হচ্ছে। ফলে চরমে উঠবে দুর্ভোগে। মাসের শেষে অনেকেরই বেতন, পেনশন হয়ে থাকে। স্বাভাবিকভাবেই ভিড়টা বেশি থাকে এই সময়ে ব্যাংকে। তবে কিছুটা হলেও সমস্যা সমাধানের পথে হেঁটেছে কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের বেতন আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যাতে ব্যাংক ধর্মঘটের মধ্যে পড়ে সমস্যায় না জড়াতে হয় সেজন্যেই এই সিদ্ধান্ত সরকারের।

মঙ্গলবারেই বেতন হয়ে যাবে সমস্ত সরকারি কর্মীদের, জারি বিজ্ঞপ্তি

সেই মতো নয়া বিজ্ঞপ্তি দিল ভারতীয় রেল। রেলের সমস্ত কর্মীদের বেতনও মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আগামী মঙ্গলবার অর্থাৎ ব্যাংক ধর্মঘটের আগের দিন সমস্ত কর্মীদের বেতন মেটানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যাতে কর্মীদের ধর্মঘটের দিন না কোনও সমস্যায় পড়তে হয়। স্বশাসিত সংস্থা সিসিওদের নির্ধারিত ব্যাংকের সঙ্গে সংযোগ রক্ষা করে বেতন সম্পর্কিত বিষয়গুলি মেটানোর কথা বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২ শতাংশ বেতন বাড়ানোর দাবি ইউনিয়নগুলির বহুদিনেরই। সে দাবি পূরণ না হওয়াতেই ধর্মঘটের পথে হেঁটেছে ইউনিয়নগুলি। ইউনাইটেড ফোরাম অফ ব্যাংক ইউনিয়নের ডাকা ধর্মঘটের প্রভাব পড়বে গোটা দেশজুড়েই। স্তব্ধ হতে পারে ব্যাংকিং পরিষেবা। এমনকি এটিএমও বন্ধ থাকতে পারে ইতিমধ্যে আশঙ্কা করা হচ্ছে।