মুম্বইঃ প্রতি বছর ঈদেই মুক্তি পায় সলমন (Salman Khan) ভাইয়ের ছবি। বহু বছর ধরে এই কমিটমেন্টেই চলে আসছে ভাইজান। সেই কমিটমেন্টে বাধা দিয়েছিল গত বছরের লকডাউন। তাই গত বছর মুক্তি পায়নি ‘রাধে’ (Radhe)। কিন্তু এই বছর ঈদে কথা রেখেছে সলমন খান। ওটিটি (OTT) প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেয়েছে ‘রাধে – ইওর মোস্ট ওয়ান্টেড ভাই’ (Radhe – Your Most Wanted Bhai)। কিন্তু ভাইজান কথা রাখলেও ধোঁকা দিচ্ছে ভক্তরা। চোখে ধুলো দিয়ে ‘সাবস্ক্রাইব’ (subscribe) না করেই জাল ভিডিও দেখছেন। একাধিক নকল সাইটে বিনামূল্যে ছবিটি দেখানো হচ্ছে। আর সেই সুযোগ নিচ্ছে দর্শকরা। এর ফলে ছবির ব্যবসায় মার খাচ্ছে নির্মাতারা।

কথা ছিল উপযুক্ত মূল্যে সাবস্ক্রাইব করেই দেখতে হবে ছবি। কিন্তু তা না করে একাধিক দর্শক নকল সাইটে বিনামূল্যে দেখছেন ছবি। ফলে ক্ষুব্ধ হয়েছেন সলমন। শনিবার টুইট করে সাবধান করেছন তিনি। বলেছেন, মাত্র ২৪৯ টাকা খরচ করেই দেখা যাচ্ছে রাধে। তার পরেও একাধিক অসাধু ব্যক্তি অনৈতিকভাবে নকল সাইটে ছবি প্রদর্শন করছেন। যা গুরুতর অপরাধ। তিনি এবং তার টিম যোগাযোগ করেছেন সাইবার সেলের সঙ্গে। এখনই এই কাজ বন্ধ না করলে সাইবার সেলের অপরাধদমূলক শাখা অপরাধীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবে।

ছবি মুক্তির আগে সলমন তার দর্শকের কাছে এই সমস্ত নকল সাইট কিংবা নকল ছবির ভিডিও থেকে সাবধান করে একটি ভিডিও বার্তা শেয়ার করেছিলেন সোশ্যাল সাইটে। ভিডিওতে তিনি বলেছিলেন, ‘একটা ছবি বানানোর জন্যে একাধিক মানুষের দীর্ঘদিনের প্রচুর পরিশ্রম থাকে। আর ছবি মুক্তির পর যখন কিছু মানুষ নকল সাইটে গিয়ে ছবি দেখে তা ভীষণই কষ্টদায়ক। এতে ছবির ব্যবসায় প্রচুর ক্ষতি হয়। তাই সকল দর্শকের কাছে অনুরোধ করবো, তারা যেন সঠিক প্ল্যাটফর্মে গিয়ে ছবি দেখেন’। ভিডিওর ক্যাপশনে লিখেছিলেন, ‘No piracy in entertainment.. #Radhe’।

এই বছর ঈদে এই কমিটমেন্টই চেয়েছেন ভাইজান তার দর্শকদের কাছ থেকে। কিন্তু তারপরেও ‘রাধে’ একাধিক নকল সাইটে রমরমিয়ে চলছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.