বোর্নমাউথ: দুর্দান্ত হ্যাটট্রিক মহম্মদ সালাহের। সহজ জয় লিভারপুলের৷ মিশরীয় এই স্ট্রাইকারের নৈপুণ্যে বোর্নমাউথকে তাদের ঘরের মাঠে ৪-০ হারিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়র লিগের শীর্ষে পৌঁছে গেল ‘দ্য রেডস’৷ এই জয়ের ফলে ১৬ ম্যাচে ১৩টি জয় ও তিনটি ড্র করে ৪২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে লিভারপুল।

বোর্নমাউথকে তাদের ঘরের মাঠে শনিবার দাঁড়াতেই দেয়নি ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। ম্যাচের শুরু থেকে বল দখলে একচেটিয়া ছিল লিভারপুলের৷ তবে প্রথমার্ধে খুব বেশি সুযোগ তৈরি করতে পারেনি লিভারপুল। কাঙ্ক্ষিত গোল আসে ম্যাচের ২৫ মিনিটে। রবের্তো ফিরমিনোর দূরপাল্লার শটে গোলরক্ষক ঝাঁপিয়ে ঠেকালেও বল চলে যায় সালাহর পায়ে। অনায়াসে তা ফিরতি গোলে পাঠাতে ভুল করেননি সালাহ৷ ১-০ এগিয়ে থেকে প্রথমার্থে মাঠ ছাড়ে লিভারপুল৷

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই চমৎকার গোলে সালাহের৷ মিশরীয় স্ট্রাইকারের গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করে দ্য রেডস। এবারও ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ফিরমিনোর পাস ধরে দ্রুত ডি-বক্সে ঢুকে পড়ে বাঁ-পায়ের জোরাল শটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন সালাহ। ৬৮তম মিনিটে স্টিভ কুকের আত্মঘাতী গোলে ম্যাচ চলে যায় লিভারপুলের নিয়ন্ত্রণে। বাঁ-দিক থেকে অ্যান্ডি রবার্টসনের ক্রস ঠেকাতে গিয়ে পা বাড়িয়ে দেন বোর্নমাউথের ইংলিশ ডিফেন্ডার। বল তার পায়ে লেগে জালে জড়ায়৷ ৩-০ এগিয়ে যায় লিভারপুল৷

হ্যাটট্রিকের জন্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি সালাহকে৷ ৭৭ মিনিটে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন মিশরীয় স্ট্রাইকার৷ ফিরতি আক্রমণে নিজেদের সীমানা থেকে সতীর্থের বাড়ানো বল ধরে দারুণ ক্ষিপ্রতায় ডি-বক্সে ঢুকে গোলরক্ষক বেগোভিচকে কাটান সালাহ। কিন্তু গোললাইন সেভে এক ডিফেন্ডার থাকায় কিছুটা সময় নিয়ে দেখেশুনে বোর্নমাউথের জালে বল জড়ান তিনি৷ এর ফলে দলের নিশ্চিত জয়ের পাশাপাশি চলতি মরশুমে ১০টি গোল করে গোলদাতাদের মধ্যে শীর্ষে উঠে এলেন সালাহ৷

লিভারপুল সহজ জয় পেলেও কষ্ঠার্জিত জয় পায় আর্সেনাল৷ এমিরেটস স্টেডিয়ামে হাডার্সফিল্ডের বিরুদ্ধে ১-০ জেতে দ্য গানার্স। ১৬ ম্যাচে ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে লিগ তালিকায় পাঁচ নম্বরে আর্সেনাল। গোলশূন্য প্রথমার্ধে বলের নিয়ন্ত্রণে এগিয়ে থাকলেও সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি তারা আগের ম্যাচে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সঙ্গে ২-২ ড্র করে আসা আর্সেনালের হতাশা বাড়ে ৪২ মিনিটে। প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের ব্যাক পাস থেকে লাকাজেত বল জালে জড়ালেও অফ-সাইডের কারণে গোল বাতিল হয়।

হতাশা আরও বাড়ে ৬৯ মিনিটে আলেক্স আইওবির প্রচেষ্টা ফেরানোর পথে হাডার্সফিল্ডের এক খেলোয়াড়ের হাতে বল লাগে। কিন্তু আর্সেনালের পেনাল্টির আবেদনে সাড়া দেননি রেফারি। অবশেষে ৮২ মিনিটে গোলের দেখা পায় আর্সেনাল এমিরেটসের গ্যালারি। মাতেওর বাড়ানো বল একটু লাফিয়ে ডান পায়ে আউবামেয়াং ব্যাক পাস দেন তররেইরার উদ্দেশে। উরুগুয়ের মিডফিল্ডার দারুণ বাইসাইকেল কিকে প্রতিপক্ষের জালে বল জড়াতে সক্ষম হন৷