হায়দরাবাদ: ন্যায়বিচার চেয়েছিল গোটা দেশ। দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে গলা ফাটিয়েছিলেন সাধারণ মানুষ। শুক্রবার সকালে হায়দরাবাদের ২৬ বছরের পশু চিকিৎসক তরুণীকে গণধর্ষণ করে খুন ও দেহ পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত চারজনেরই মৃত্যু হল পুলিশি এনকাউন্টারে।

অভিযুক্তদের এই সাজা কতটা যুক্তিযুক্ত, সেটা নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত গোটা দেশ। কিন্তু টুইটারে বিভিন্ন মহলের তারকাদের প্রতিক্রিয়া সর্বোপরি পুলিশের উপর স্থানীয় মানুষের পুষ্পবৃষ্টির ঘটনা ইঙ্গিত দিচ্ছে দেশের সিংহভাগ সাধারণ মানুষ পরিচিত ছক ভেঙে পুলিশের কীর্তিকে সাদরেই গ্রহণ করছেন।

রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব থেকে সিলভার স্ক্রিনের তারকারা প্রায় প্রত্যেকেই কিন্তু বাহবা জানাচ্ছেন হায়দরাবাদ পুলিশকে। পিছিয়ে নেই ক্রীড়াজগত। হায়দরাবাদ পুলিশের কর্মকান্ডে যারপরনাই খুশি ঘরের মেয়ে সাইনা নেহওয়াল। এনকাউন্টারের ঘটনার পর অলিম্পিক পদকজয়ী হায়দরাবাদি এই শাটলার এদিন তাঁর মাইক্রোব্লগিং সাইটে লেখেন, ‘দারুণ কাজ হায়দরাবাদ পুলিশ। আমরা আপনাদের কুর্নিশ জানাই।’

তবে সাইনা খুশি হলেও খুশি হতে পারছেন না দেশের আরেক মহিলা শাটলার জ্বালা গুট্টা। টুইটারে হায়দরাবাদ পুলিশের এই এনকাউন্টার নিয়ে প্রশ্ন তুলে জ্বালা লিখেছেন, ‘এই ঘটনা কী আদৌ ধর্ষকদের কড়া বার্তা দেবে? নাকি সামাজিক অবস্থান বিচার না করে আগামিদিনে সব ধর্ষকের এভাবেই শাস্তি হবে? অর্থাৎ, সমাজের প্রভাবশালী মানুষ যাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মত অভিযোগ উঠলে কালের নিয়মে তা লঘু হয়ে, তাদের বিরুদ্ধেও এত কঠোর মনোভাবাপন্ন হতে পারবে তো পুলিশ? প্রশ্ন তুলেছেন কমনওয়েলথে সোনাজয়ী শাটলার।

তবে এক্ষেত্রে হায়দরাবাদ পুলিশকে কুর্নিশ এবং অভিনন্দন জানিয়েছেন ঋষি কাপুর, অনুপম খেরের মত তাবড় তাবড় অভিনেতারাও। দক্ষিণী অভিনেতা নাগার্জুন টুইটারে লেখেন, ‘সকালে ঘুম ভেঙেই ঘটনাটা শুনলাম। যথোপযুক্ত ন্যায়বিচার।’ এছাড়াও এনকাউন্টারের ঘটনায় পুলিশকে অভিনন্দন জানিয়েছেন রাকুলপ্রীত সিং, বিবেক ওবেরয়, সোনু সুদের মত অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও।

উল্লেখ্য, গত বুধবার হায়দরাবাদের যে হাইওয়ে সাক্ষী ছিল নৃশংস এবং মর্মান্তিক ঘটনার, শুক্রবার ভোররাতে সেই অভিশপ্ত হাইওয়েতেই পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয়েছে চার অভিযুক্তের। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার পুনর্নিমাণের সময় অভিযুক্তরা পালানোর চেষ্টা করছিল। তখনই তাদের গুলি করা হয়।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ