কলকাতা: করোনা আক্রান্ত হয়ে এবার সাগর দত্ত মেডিক্যালের অধ্যক্ষার মৃত্যু হল৷ ভর্তি ছিলেন কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে৷ বৃহস্পতিবার অধ্যক্ষা হাসি দাশগুপ্ত শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন৷ এছাড়া করোনা আক্রান্ত হয়ে রাজ্যে আরও ২ চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে৷ তারফলে একই দিনে রাজ্যে ৩ চিকিৎসকের মৃত্যু হল৷

সূত্রের খবর, করোনা আক্রান্ত হয়ে সাগর দত্ত মেডিক্যালের অধ্যক্ষা হাসি দাশগুপ্ত ভর্তি হয়েছিলেন কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে৷ গত মঙ্গলবার তিনি ভর্তি হন৷ বৃহস্পতিবার তার মৃত্যু হয়৷ তাছাড়া করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন বালিগঞ্জের চিকিৎসক রমেন হাজরা৷ করোনা মুক্ত হয়ে বাড়িও ফিরেছিলেন তিনি৷

পরে ফের অসুস্থ হওয়ায় ঢাকুরিয়া আমরি হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়৷ সেখানেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে খবর৷ অন্যদিকে জলপাইগুড়ির চিকিৎসক মৃণালকান্তি আচার্যের শিলিগুড়ির হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে৷ তিনিও করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন৷ বুধবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য ভবন বুলেটিনের তথ্য অনুযায়ী,একদিনে আক্রান্ত ৩,২৭১ জন৷

সব মিলিয়ে রাজ্যে মোট আক্রান্ত ৪ লক্ষ ৯০ হাজার ০৭০ জন৷ তাছাড়া বাংলায় একদিনে আরও ৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ তবে মোট মৃতের সংখ্যাটা সাড়ে আট হাজার ছাড়িয়েছে৷ তথ্য অনুযায়ী ৮,৫২৭ জন৷ মৃত ৫১ জনের মধ্যে কলকাতার ১২ জন৷ আর উত্তর ২৪ পরগণায়ও ১১ জন৷ দক্ষিণ ২৪ পরগণায় ৫ জন৷ হাওড়ার ৮ জন৷ হুগলী ৪ জন৷

পূর্ব বর্ধমান ১ জন৷ পশ্চিম মেদিনীপুর ৩ জন৷ বীরভূম ১ জন৷ নদিয়া ২ জন৷ মুর্শিদাবাদ ২ জন৷ দার্জিলিং ২ জন৷ রাজ্যে একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩,২৭৫ জন৷ বাংলায় এই পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন সাড়ে ৪ লক্ষের বেশি৷

তথ্য অনুযায়ী, ৪ লক্ষ ৫৭ হাজার ৩৭৭ জন৷ সুস্থতার হার বেড়ে ৯৩.৩৩ শতাংশ৷ অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটা কমে ২৪ হাজারের সামান্য বেশি৷ তথ্য অনুযায়ী, ২৪ হাজার ১৬৬ জন৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।