স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি : কাটমানির বদলা ব্ল্যাকমানি ফেরতের দাবিতে তৃণমূলের মিছিল। জলপাইগুড়ির মালবাজারে জোড়াফুলের প্রতাপ। সেই প্রবল প্রতাপ মিছিলের মাঝেই হনুমানের ‘টুকি টুকি’ উপস্থিতি! দূর থেকে দেখে কৌতুহল স্থানীয়দের। মিছিল এগোচ্ছে তার নিজস্ব ছন্দে। কাছে আসতেই তাজ্জব সকলে। আরে এতো ‘টুকি টুকি’ নয়। তৃণমূলের মিছিলে গেরুয়া শিবিরের হনুমানের হাজিরা প্রবল বিক্রমে!

লোকসভা ভোটের ড্যামেজ কন্ট্রোলে ফের মাঠে নেমে আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। কাটমানি ফেরতের দাবিতে এদিন মালবাজারের ওদলাবাড়িতে মিছিল করে রাজযের শাসক দল। সেই মিছিলে তৃণমূলের পতাকার সহ্গেই পতপত করে উড়ল হনুমানের তেজী ছবি দেওয়া গেরুয়া পতাকা। হনুমান-রাম নাম নিয়েই বাংলায় বেঁধেছে লঙ্কাকাণ্ড। বিজেপি যখন রাম নামেই বৈতরণী পারের চেষ্টা করছে, তখন তার প্রভাব রুখতে সচেষ্ট তৃণমূল। রাম নাম, হনুমানের মতো হিন্দু দেবদেবীদের মাহাত্ম্যকে সংকীর্ণভাবে গেরুযা দল ব্যবহার করছঠে বলে অভিযোগ রাজ্যের শাসক শিবিরের। তাহলে হঠাৎ কেন হনুমান পতাকার প্রয়োগ তৃণমূলের মিছিলে?

প্রশ্ন করতেই ঢোক গিলছেন মিছিলের নেতৃত্ব। উত্তরে যুক্তির থেকে বেশি ঢাল কৌতুকের। হনুমানের পতাকার দিকে চেয়ে তাদের সাফাই, বিজেপির সংকীর্ণ রাজনীতি দেকে হনুমানও রেগে গিযেছেন। তাই গেরুয়া শিবিরের কৌশল ফাঁস করতেই রাগি হনুমানকেই একানে দেখানো হয়েছে। কিছু একটা গন্ডগোলের আবাস পেযেই তাই তৃণমূলের মাল ব্লক সভাপতি তমাল ঘোষ বলেন, ‘তৃণমূলের আগে কাটমানি নিয়েছে সিপিএম, কংগ্রেস। তাই তাদের কাটমানি ফেরত দিতে হবে আগে। আর ক্ষমতায় আসার আগে বিজেপি কালোটাকা ফেরতের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। প্রত্যেকের অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা করে জমা পড়বে বলে জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। কোতায় গেল সেই প্রতিশ্রুতি ?’

সব দেখে অনেকেই তাই বলছেন, ঠেলার নাম ‘রাম নাম’ ও ‘হনুমান’। তাই আদিবাসী ও হিন্দু ভোট ফেরাতে গেরুয়া শিবিরের অস্ত্রকেই কৌশলে হাতিয়ার করছে প্রতিপক্ষ তৃণমূলও। উত্তরবঙ্গে এবার তৃণমূলে বিরূপ। আটটি লোকসভা আসনের একটিতেও জয়ের মুখ দেখতে পায়নি জোড়াফুল শিবির। স্পষ্ট যে, চা বাগানের শ্রমিক বা আদিবাসী, পাহাড়ের বাসিন্দাদের আস্থা অর্জন করতে পারেনি জোড়াফুল শিবির। তৃণমূলের হিন্দু ভোটও প্রাপ্তির ঝুলিতেও টান পড়েছে। যা ফেরাতে এখন হনুমানেই ভরসা রাখতে হচ্ছে রাজ্যের শাসক দলকে। সব দেখে বিজেপির টিপ্পনি, মুখে বিরোধীতা করলেও তৃণমূলের ভয়ের কারণ যে রামের বাহন হনুমান তা মান্যতা পেল।