কলকাতা: বেসরকারি স্কুলে টিউশন ফি ছাড়া অন্য ফি মকুবের দাবিতে রাজ্যের ক্রেতা সুরক্ষা মন্ত্রী সাধন পাণ্ডেকে চিঠি দিয়েছিলেন অভিভাবকদের একটি ফোরাম। সেই চিঠি পেয়ে শিক্ষা দফতরের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন বলে জানিয়েছিলেন মন্ত্রী। কিন্তু শুক্রবার কলকাতা 24×7-এর ফেসবুক লাইভে বিস্ফোরক মন্তব্য করলে সাধন পাণ্ডে।

বেসরকারি স্কুলগুলির ফি নিয়ে শেষ পর্যন্ত কি সিদ্ধান্ত হল? এই প্রশ্নের উত্তরে এদিন ক্রেতা সুরক্ষা মন্ত্রী বললেন, “আমাকে এব্যাপারে চুপ করে থাকতে বলা হয়েছে।” কে চুপ করে থাকতে বলেছে, সেই প্রশ্নের উত্তর তিনি এড়িয়ে গিয়েছেন। তবে রাজনৈতিক মহল মনে করছে, সাধনবাবুর এই ইঙ্গিত শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের দিকেই ছিল।

প্রসঙ্গত, লকডাউনের মধ্যে স্কুল বন্ধ থাকায় তাঁরা টিউশন ফি ছাড়া অন্য কোনও ফি দেবেন না। এই দাবিতে শহরের বিভিন্ন বেসরকারি স্কুলের সামনে অনেকদিন ধরেই অভিভাবকেরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে তাঁরা চিঠিও দিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী এবং শিক্ষামন্ত্রী দুজনেই স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে ফি না বাড়ানোর আর্জি জানিয়েছেন। কিন্তু তাতেও পুরোপুরি কাজ হয়নি। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের আর্জি মেনে কিছু স্কুল বর্ধিত ফি কমিয়েছে। কিন্তু অভিযোগ, কয়েকটি স্কুল এখনও ফি কমানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়নি। কোনও কোনও স্কুল নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ফি জমা না দিলে জরিমানা নেওয়ার কথাও বলেছে বলে।

সম্প্রতি অভিভাবকদের একটি সংগঠন ‘ইউনাইটেড গার্ডিয়ান্স অ্যাসোসিয়েশন’-এর তরফে এব্যাপারে ক্রেতা সুরক্ষা দফতরকে চিঠি দেওয়া হয়। স্কুল ফি নিয়ে রাজ্যের অভিভাবক ফোরামের চিঠির উত্তরে ক্রেতা সুরক্ষা মন্ত্রী সাধন পান্ডে জানালেন,”শিক্ষা দফতরের সঙ্গে এই ইস্যুতে আলোচনা করছে ক্রেতা সুরক্ষা দফতর। সংশ্লিষ্ট শিক্ষাবোর্ডের কাছে আবেদন জানাতে বলা হয়েছে বিভিন্ন অভিভাবক ফোরামকে।” সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ড কী পদক্ষেপ নেয়, তার ওপরে নজর রাখছে ক্রেতা সুরক্ষা দফতর।

সেই চিঠি পেয়ে সাধন পাণ্ডে তখন বলেছিলেন, “শিক্ষা দফতরের সঙ্গে এই ইস্যুতে আলোচনা করছে ক্রেতা সুরক্ষা দফতর। সংশ্লিষ্ট শিক্ষাবোর্ডের কাছে আবেদন জানাতে বলা হয়েছে বিভিন্ন অভিভাবক ফোরামকে। সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ড কী পদক্ষেপ নেয়, তার ওপরে নজর রাখছে ক্রেতা সুরক্ষা দফতর।” কিন্তু দফতরের বৈঠকে যে ফলপ্রসূ হয়নি তা এদিন ক্রেতা সুরক্ষা দফতরের মন্ত্রীর মন্তব্যেই স্পষ্ট।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ