স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আমফানের ত্রাণ দুর্নীতিতে যুক্তদের শুধু দল থেকে তাড়ালে হবে না, তাদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করতে হবে। কলকাতা 24×7-এর ফেসবুক লাইভে এমনই দাবি করলেন তৃণমূলের বর্ষীয়ান নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী সাধন পাণ্ডে।

আমফানের ত্রাণ বিলিতে দুর্নীতির অভিযোগে উত্তাল রাজ্য রাজনীতি। রাজ্যের সর্বত্রই বিক্ষোভ-অবরোধ চলছে।অভিযোগ এলেই কড়া পদক্ষেপের নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। দলনেত্রীর আদেশ অনুসারে ত্রাণ নিয়ে গাফিলতি ও গরমিলের অভিযোগ পাওয়া মাত্রই বেশ কয়েজনকে ইতিমধ্যেই শোকজ করেছে তৃণমূল।

শুধু তাই নয়, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার পর সরাসরি দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে হাওড়া তিনজন নেতাকে। বহিষ্কৃতদের অবিলম্বে পদ ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন রাজ্যের মন্ত্রী ও তৃণমূলের হাওড়া জেলা সভাপতি(সদর) অরূপ রায়।

এপ্রসঙ্গে শুক্রবার সাধন পাণ্ডে বলেন, ” ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতিকারীদের পার্টি শাস্তি দেওয়ার পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে এফআইআর করুক।আমি মনে করি, দুর্নীতিগ্রস্থদের দল থেকে বের করে দেওয়াটাই শেষ নয়। তাদের বিরুদ্ধে যেন অপরাধমূলক আইনের মামলা করা হয়।”

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি এক সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী তথা উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেছিলেন, “ঘূর্ণিঝড় আমফানের ত্রাণের টাকা স্বজনপোষণ করে যাদের পাইয়ে দেওয়া হয়েছে সেই টাকা ফেরত নেবে সরকার। সঙ্গে তৃণমূলের কেউ এই দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত থাকলে কড়া পদক্ষেপ করবে দল।”

যদিও জোড়া-ফুল শিবিরের এই পদক্ষেপকে ‘লোক দেখানো’ বলে কটাক্ষ করেছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেছেন, “এই ধরনের দুর্নীতি একমাত্র তৃণমূলের পক্ষেই সম্ভব। ত্রাণ দুর্নীতি নিয়ে একটা পদক্ষেপ নজরে পড়ল।

কিন্তু, এর আগে রেশন দুর্নীতি নিয়ে প্রচুর অভিযোগ থাকলেও খাদ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি। তাই পুরোটাই আইওয়াশ। দুর্নীতির অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও শাসক দলের নেতাদের বিরুদ্ধে কটা অভিযোগ পুলিশে দায়ের হয়েছে?” তৃণমূলের বর্ষীয়ান নেতা সাধন পাণ্ডেও খানিকটা এই সুরেই কথা বললেন বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।