সিডনি: ব্যাট ও বল হাতে নজর কাড়লেন অর্জুন তেন্ডুলকর৷ ব্র্যাডম্যান ওভালে স্পিরিট অফ ক্রিকেট গ্লোবাল চ্যালেঞ্জে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন সচিনপুত্র৷

টি-২০ টুর্নামেন্টে ক্রিকেটার্স ক্লাব অফ ইন্ডিয়ার হয়ে হংকং ক্রিকেট ক্লাবের বিরুদ্ধে ব্যাটে ঝড় তোলেন অর্জুন৷ ২৭ বলে ৪৮ রানের ঝোড়ো ইনিংসের পর বল হাতেও কামাল দেখান মাস্টার ব্লাস্টারের ১৮ বছরের ছেলে৷ চার ওভারে চারটি উইকেট তুলে নেন অর্জুন৷অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট ওয়েবসাইটে দেওয়া সাক্ষাতকারে অর্জুন বলেন, ‘ব্র্যাডম্যানের নামাঙ্কিত মাঠে খেলতে পারাটা আমার কাছে গর্বের৷ আমার এখনও বিশ্বাস হচ্ছে না এখানে আমি খেলছি!’ বাবা কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান হলেও ছেলে অল-রাউন্ডার হিসেবেই বড় হতে চান৷ ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বাঁ-হাতি পেস বোলিং করে সচিনপুত্র৷

তবে ছোট থেকে বাবাকে ‘ব্যাটিং মায়েস্ত্রো’ হিসেবে দেখে এসেছেন অর্জুন৷ তবুও ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ছোট থেকে তিনি যে পেস বোলিংয়ের ভক্ত তা জানাতে ভোলেননি বছর আঠারোর এই মারাঠি৷ অর্জুন জানান, ‘আমি এখন বড় হয়েছি৷ যথেষ্ট লম্বাও৷ ছোট থেকেই আমার ফাস্ট বোলিং ভালোবাসতাম৷’

গত বছর জুলাইয়ে ইংল্যান্ড দলের সঙ্গে লর্ডসে প্র্যাকটিসে জনি বেয়ারস্টোকে ইয়র্কারে বোল্ড করেছিলেন অর্জুন৷ ছ’ ফুটের অর্জুন পেস বোলিংয়ে ভক্ত অস্ট্রেলিয়ার বাঁ-হাতি পেসার মিচেল স্টার্ক এবং ইংল্যান্ড অল-রাউন্ডার বেন স্টোকসের৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।