নয়াদিল্লি: বাউন্ডারি হাঁকানোর নিরিখে ইংল্যান্ডের বিশ্বজয় নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি ক্রিকেটমহলে। আইসিসি’র হাস্যকর নিয়মের বিরোধিতা করে সরব হয়েছিলেন অনুরাগীরা। গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টে সুপার ওভারের নিয়ম বদলের সুপারিশ করে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থার কাছে প্রথম আবেদন নিয়ে গিয়েছিলেন মাস্টার ব্লাস্টার সচিন তেন্ডুলকর। তাই মঙ্গলবার পুরনো নিয়ম বদলে সুপার ওভারে আইসিসি নির্দেশিত নয়া নিয়মকে স্বাগত জানালেন ভারতীয় ক্রিকেটের মহীরুহ।

উল্লেখ্য, গ্লোবাল টুর্নামেন্টের নক-আউট পর্যায়ে সুপার ওভারের নয়া নিয়ম স্থির করতে মঙ্গলবার দুবাইয়ে সভায় বসেছিল আইসিসি। সর্বোচ্চ সংস্থা নির্দেশিত নয়া নিয়ম অনুযায়ী বৈঠকে স্থির হয় নক-আউট পর্যায়ে সুপার ওভারে দু’দলের রানসংখ্যা যতক্ষণ না পর্যন্ত একে অপরকে টেক্কা দিচ্ছে ততক্ষণ জারি থাকবে লড়াই। নির্ধারিত ওভারের পর সুপার ওভারেও ম্যাচ টাই হলে পুনরায় সুপার ওভারে অবতীর্ণ হতে হবে দু’দলকে। অর্থাৎ, নির্ধারিত ওভারের পর সুপার ওভারেও দু’দলের রানসংখ্যা সমান দাঁড়ালে আগে বাউন্ডারির নিরিখে বিজয়ী বেছে নেওয়ার পদ্ধতিতে ব্যাপক রদবদল আনল আইসিসি।

আরও পড়ুন: কনিষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে লিস্ট-এ দ্বিশতরান যশস্বীর

আর মেগা টুর্নামেন্টের নক-আউট স্টেজে (সেমিফাইনাল ও ফাইনাল) সুপার ওভারের ক্ষেত্রে আইসিসি’র নয়া নিয়মকে সাদরে গ্রহণ করলেন মাস্টার ব্লাস্টার। পরিবর্তিত নিয়মকে স্বাগত জানিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০০টি শতরানের মালিক এদিন একটি টুইট করেন। টুইটে তেন্ডুলকর লেখেন, ‘আমার মনে হয় দু’টো দলের মধ্যে ফারাক খোঁজা যখন মুশকিল হয়ে দাঁড়ায় তখন বিজয়ী বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রে এটাই একমাত্র সঠিক উপায়।’ ১৪ জুলাই লর্ডসে বিশ্বকাপ ফাইনালে নির্ধারিত ওভারের পর সুপার ওভারেও ম্যাচ টাই হওয়ায় বাউন্ডারির নিরিখে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে নয়া বিশ্বচ্যাম্পিয়নের স্বাদ পায় ইংল্যান্ড।

আরও পড়ুন: প্রেসিডেন্ট দাদি’কে অভিনন্দন মাস্টার-ব্লাস্টারের

দিনদু’য়েক বাদেই আইসিসি’র নিয়মের বিরোধিতা করে সচিন এমন জটিল পরিস্থিতিতে পুনরায় সুপার ওভারের প্রস্তাব দিয়েছিলেন আইসিসি’কে। শুধু সচিন নন, পুরনো নিয়মের বিরোধিতায় সরব হয়েছিলেন প্রাক্তন থেকে বর্তমান অনেক ক্রিকেটারই। বিভিন্ন মহল থেকে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া পাওয়ার পরই নিয়ম বদলের বিষয়ে উঠেপেড়ে লাগে বিশ্বক্রিকেটের গভর্নিং বডি। অবশেষে মাস তিনেকের প্রতীক্ষার পর পুরনো নিয়মে বদল আনল আইসিসি।