মেলবোর্ন: খেলা ছাড়ার পর ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত থাকলেও সরাসরি কোচিংয়ে দেখা যায়নি সচিন তেন্ডুলকরকে৷ আইপিএলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের মেন্টর হিসেবে মাঠে উপস্থিত থাকলেও সচিনকে সেই অর্থে কোচিং স্টাফ হিসেবে বিবেচনা করা হয় না৷ ধারাভাষ্যকার ও বিশেষজ্ঞের চেয়ারে মাঝে মধ্যে দেখা যায় তাঁকে৷ মাস্টার ব্লাস্টার পালন করেছেন বিসিসিআই-এর ক্রিকেট অ্যাডভাইজরি কমিটির সদস্যের দায়িত্বও৷ অবশেষে কোচ হিসাবে মাঠে দেখা যেতে চলেছে লিটল মাস্টারকে৷

আরও পড়ুন: ‘মারকে ভার্তা বানা দিয়া রোহিত’ বললেন শোয়েব

অস্ট্রেলিয়ার ভয়াবহ দাবানলে ক্ষতিগ্রস্থদের সাহায্যার্থে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া যে চ্যারিটি ম্যাচ আয়োজন করতে চলেছে, তাতে কোচিং করতে দেখা যাবে সচিনকে৷ বিগ ব্যাশ ফাইনালের আগে বুশফায়ার ক্রিকেট ব্যাশ নামক এই অল-স্টার প্রদর্শনী ম্যাচে রিকি পন্টিংয়ের দলের কোচ নিযুক্ত হলেন মাস্টার ব্লাস্টার৷ প্রতিপক্ষ শেন ওয়ার্নের দলকে কোচিং করাবেন ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি ওয়ালস৷

আরও পড়ুন: গতিতে আখতারকেও ছাপিয়ে গেলেন ‘নতুন মালিঙ্গা’

পন্টিং ও ওয়ার্নার ছাড়াও এই চ্যারিটি ম্যাচে অংশ নেবেন জাস্টিন ল্যাঙ্গার, অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, ব্রেট লি, শেন ওয়াটসন, অ্যালেক্স ব্ল্যাকওয়েল, মাইকেল ক্লার্কের মতো তারকারা৷ ম্যাচের ভেন্যু এখনও নির্ধারিত হয়নি৷ ৩১ জানুয়ারি বিগ ব্যাশের কোয়ালিফায়ার ম্যাচের পর কারা ফাইনালে ওঠে, তা দেখার পরেই স্থির হবে কোথায় খেলা হবে এই অলস্টার ম্যাচটি৷ অর্থাৎ, বিগ ব্যশ ফাইনাল যেখানে অনুষ্ঠিত হবে, সেই ম্যাচের ঠিক আগেই চ্যারিটি ম্যাচটি খেলা হবে একই স্টেডিয়ামে৷

আরও পড়ুন: ‘আইপিএল খেলব না এটা মেনে নেওয়া কঠিন ছিল’, ট্রিপল সেঞ্চুরি করে বললেন মনোজ

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সিইও কেভিন রবার্টস এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘সচিন ও ওয়ালসকে অস্ট্রলিয়ায় ফেরাতে পারা, যেখানে ওঁরা ক্রিকেটার হিসেবে প্রভূত সাফল্য পেয়েছেন, আমাদের কাছে অত্যন্ত গৌরবের বিষয়৷ এই মানবিক প্রচেষ্টায় দুই কিংবদন্তিকে সামিল করার জন্য আমরা অধীর আগ্রহে রয়েছি৷’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।