মুম্বই: রবিবাসরীয় মেলবোর্নে টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি দেশের মেয়েরা। হরমনপ্রীতদের প্রথমবার টি-২০ বিশ্বজয়ের স্বপ্নে আপাতত বুঁদ দেশের ক্রিকেট অনুরাগীরা। তার ঠিক আগের রাতে উত্তাপ আরও কয়েকগুণ বাড়িয়ে ভারতের মাটিতে বসছে ক্রিকেটীয় মহাযজ্ঞের আসর। উপলক্ষ্য রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজ। শনিবাসরীয় ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে বহু প্রতীক্ষিত এই ক্রিকেট সিরিজের প্রথম ম্যাচ। মুখোমুখি সচিন বনাম লারা।

অধিনায়ক হিসেবে টস করতে নামছেন দুই কিংবদন্তি সচিন রমেশ তেন্ডুলকর ও ব্রায়ান চার্লস লারা। কার্ল হুপারকে স্টেপ আউট করে ছক্কা হাঁকাচ্ছেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। এমনই সব মূল্যবান ক্রিকেটীয় দৃশ্যের সাক্ষী আজ থাকবেন বাণিজ্য নগরীর ক্রিকেট ফ্যানেরা। তবে সবকিছু ছাপিয়ে সবচেয়ে বেশি যে দৃশ্য দেখার জন্য অপেক্ষা করছে আসমুদ্র-হিমাচল, সেটা অবশ্যই ঘরের মাঠ ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে ভারতীয় ক্রিকেটের মহীরুহ সচিন রমেশ তেন্ডুলকরের ব্যাটিং।

দিনকয়েক আগে মেলবোর্নে বুশফায়ার ক্রিকেট ব্যাশে এলিস পেরির ডাকে সাড়া দিয়ে ব্যাট হাতে নেমেছিলেন। কিন্তু অবসরোত্তর সময়ে শনিবার প্রথমবারের জন্য ওয়াংখেড়েতে ব্যাটসম্যান সচিনকে পুরোদমে পাওয়ার সুযোগ অনুরাগীদের কাছে। মাস্টার-ব্লাস্টার নেতৃত্বাধীন ইন্ডিয়া লেজেন্ডস সিরিজের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি ব্রায়ান লারা নেতৃত্বাধীন ওয়েস্ট ইন্ডিজ একাদশের। ঘরের ছেলের পাশাপাশি ত্রিনিদাদের রাজপুত্রের ব্যাটিং দেখতেও মুখিয়ে ক্রিকেট ফ্যানেরা।

তবে শুধু সচিন কিংবা লারা নন, এককথায় ওয়াংখেড়েয় আজ চাঁদের হাট। সচিন নেতৃত্বাধীন ভারতীয় দলে থাকছেন যুবরাজ সিং, জাহির খান কিংবা মুনাফ প্যাটেলের মত বিশ্বজয়ী দলের সদস্যরা। ঠিক তেমনই ওয়েস্ট ইন্ডিজ লেজেন্ড স্কোয়াডে রয়েছে কার্ল হুপার, শিবনারায়ণ চন্দ্রপল, রামনরেশ সারওয়ানের মতো নাম। থাকছেন স্প্রিন্টার যোহান ব্লেকও। পাঁচ দেশের এই ওয়ার্ল্ড সিরিজের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামার আগে মুম্বইয়ে শুক্রবার নেটে গা ঘামালেন দু’দলের ক্রিকেটাররা।

প্র্যাকটিস সেশনের পর যুবরাজ জানান, ‘পুরনো দলের সঙ্গে মাঠে নামার অনুভূতিটা সবসময়ই আলাদা। ক্রিকেটের সঙ্গে ভরপুর মজাও থাকবে মাঠে। মহৎ একটা উদ্দেশ্যে আমরা খেলছি। সচিন প্র্যাকটিসে অনেক সময় দিচ্ছে। দলের বোলিং নিয়ে আমরা আশাবাদী তবে ফিল্ডিংয়ের দিকে নজর রাখতে হবে।’ অন্যদিকে লারা নেতৃত্বে মাঠে নামলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনুশীলনে সবচেয়ে বেশি গা ঘামালেন কার্ল হুপার। নেটে দীর্ঘক্ষণ স্পিনার এবং পেসারদের সামলাতে দেখা যায় চন্দ্রপলকে।

ইন্ডিয়া লেজেন্ডস স্কোয়াড: সচিন তেন্ডুলকর (অধিনায়ক), বীরেন্দ্র সেহওয়াগ, যুবরাজ সিং, জাহির খান, ইরফান পাঠান, অজিত আগরকর, সঞ্জয় বাঙ্গার, মুনাফ প্যাটেল, মহম্মদ কাইফ, প্রজ্ঞান ওঝা, সাইরাজ বাহুতুলে ও সমীর দিঘে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ লেজেন্ডস স্কোয়াড: ব্রায়ান লারা (অধিনায়ক), যোহান ব্লেক, শিবনারায়ণ চন্দ্রপল, রামনরেশ সারওয়ান, অ্যাডাম স্যানফোর্ড, ডানজা হায়াত, ডারেন গঙ্গা, পেদ্রো কলিন্স, রিকার্ডো পাওয়েল, রিডলে জ্যাকবস, স্যামুয়েল বদ্রী ও সুলেমান বেন।