মুম্বই: টুইটারে কাশ্মীর নিয়ে ভারত বিরোধী মন্তব্যের পর ভারতীয় ক্রিকেট সর্মথক সহ প্রাক্তন ও বর্তমান ভারতীয় ক্রিকেটারদের তোপের মুখে পড়ছেন প্রাক্তন পাক-অধিনায়ক শাহিদ আফ্রিদি৷ গৌতম গম্ভীর, বিরাট কোহলির পর এবার আফ্রিদিকে পাল্টা দিলেন সচিন তেন্ডুলকর ও শিখর ধাওয়ান৷

বৃহস্পতিবার টুইটারে ভারতীয় ওপেনার শিখর ধাওয়ান নিজের বিধ্বংসী স্টাইলে লেখেন, ‘ আগের নিজের দেশের হাল ঠিক কর৷ নিজের মত নিজের কাছে রাখো৷ নিজের দেশের জন্য আমরা যা করেছি সেটাই ঠিক৷ আগে কী করতে হবে আমরা জানি৷ তোমাকে এসব ব্যাপারে মাথা গলাতে হবে না৷’

প্রায় একই ঢঙ্গে আফ্রিদির টুইটের জবাব দিয়েছেন মাস্টার ব্লাস্টার৷ পাক-ক্রিকেটারের টুইট সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে এক সংবাদ মাধ্যমকে সচিন বলেন, ‘ আমাদের দেশের ব্যাপারে কোনও বর্হিরাগতের মন্তব্য করার দরকার নেই৷ ওখানে থাকা ভারতীয় প্রতিনিধিরা বিষয়টির গুরুত্ব বুঝে সিদ্ধান্ত নিতে সমর্থ৷’

এর আগে দেশের স্বার্থে বন্ধু শাহিদ আফ্রিদিকেও কড়া বার্তা দিয়েছিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি৷বুধবার বেঙ্গালুরুতে আইপিএলে প্র্যাকটিসের মাঝে বিরাট সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন,‘একজন ভারতীয় হিসেবে আমি সবসময় দেশের ভালো চাইব৷ দেশের স্বার্থে পাশে দাঁড়াব৷ যদি কেউ এর বিরোধীতা করে, তবে তাঁকে সমর্থন করার প্রশ্ন নেই৷’

সেই সঙ্গে বিরাট আরও জানিয়েছিলেন, ‘পুরো বিষয়টি না-জেনে আমি বিশেষ কোনও মন্তব্য করতে চাই না৷ তবে দেশের প্রতি আমার সমর্থন সবসময় থাকবে৷’ আইপিএলের জন্য এই মুহূর্তে চিন্নাস্বামীতে প্র্যাকটিস করছেন বিরাট৷রবিবার ইডেনে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের জার্সিতে মাঠে নামবেন কোহলি৷

বিরাট ছাড়াও কাশ্মীর নিয়ে আফ্রিদিকে একহাত নেন টিম ইন্ডিয়ার বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান সুরেশ রায়নাও৷ টুইটারে তিনি লেখেন, ‘কাশ্মীর ভারতের অবিছেদ্য অংশ৷ এটা ভারতেরই থাকবে৷আমাদের পুরপুরুষরা এখানেই জন্মেছেন৷ আমি আশা করব, আফ্রিদি ভাই পাকিস্তান আর্মিকে আমাদের কাশ্মীরে সন্ত্রাসবাদ ও যুদ্ধের প্রস্তুতি বন্ধ করতে বলবে৷ আমরা শান্তি চাই৷’

কাশ্মীর ইস্যূতে পাক-ক্রিকেটারের বিতর্কিত টুইটের জবাবে বুধবার টুইট করেন হিন্দি ও উর্দু কবি তথা প্রখ্যাত গীতিকার জাভেদ আখতার৷টুইটে তিনি লেখেন, ‘ মিস্টার আফ্রিদি যদি আপনি একটি শান্তিপূর্ণ কাশ্মীর দেখতে চান তাহলে অনুগ্রহ করে পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদীদের বলুন বিদ্বেষ না-ছড়াতে৷ পাকিস্তানের আর্মিকে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মদত দিতে মানা করুন৷ পাক-আর্মি সন্ত্রাসবাদী ট্রেনিং ক্যাম্পগুলো বন্ধ করলেই সমস্যার সমাধানে খুবই সাহায্য করা হবে৷’