মুম্বই: বিভিন্ন সময় বিভিন্ন চ্যারিটির কাজে নিজেকে নিয়োজিত করেছেন তিনি। যদিও সামাজিক কাজে মানুষের জন্য তাঁর অর্থসাহায্য প্রচারের আড়ালেই রাখতে পছন্দ করেন মাস্টার-ব্লাস্টার। তবে দেশজুড়ে করোনা যখন দিনকে দিন তার জাল ছড়াচ্ছে, তখন সচিন তেন্ডুলকরের অর্থসাহায্যের কথা আর আড়ালে রইল না।

বিশ্ব মহামারী করোনার তহবিলে এবার সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন মাস্টার-ব্লাস্টার। মারণ ভাইরাস মোকাবিলায় দেশের করোনা তহবিলে ৫০ লক্ষ টাকা অনুদান করলেন ভারতীয় ক্রিকেটের মহীরুহ। এখনও পর্যন্ত ভারতীয় খেলোয়াড়দের মধ্যে যা সবচেয়ে বেশি৷

ভারতের ক্রীড়া ব্যক্তিত্বদের মধ্যে করোনা তহবিলে সচিনের এই অনুদান এখনও পর্যন্ত সর্বাধিক। জানা গিয়েছে রাজ্য এবং দেশের করোনা তহবিলে সমান অঙ্কের অর্থ অনুদানে এগিয়ে এসেছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০০টি সেঞ্চুরির মালিক। এমনকি এক সূত্র মারফত পিটিআই’কে জানানো হয়েছে সচিন এক্ষেত্রেও প্রাথমিকভাবে তাঁর পরিচয় গোপন রাখার আবেদন জানিয়েছিলেন।

পিটিআই’য়ের কাছে সেই সূত্র দাবি করেছে, ‘করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে তেন্ডুলকর ২৫ লক্ষ টাকা করে অর্থ সাহায্যের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন।’ গতকালই করোনা তহবিলে তেলেঙ্গানা ও হায়দরাবাদের মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে ৫ লক্ষ টাকা করে মোট ১০ লক্ষ টাকা অনুদানের কথা ঘোষণা করেছিলেন অভিজ্ঞ শাটলার পিভি সিন্ধু। সংকটের মুহূর্তে দেশের অ্যাথলিটরা যেমন পারছেন বাড়িয়ে দিচ্ছেন সাহায্যের হাত।

জানা গিয়েছে, বরোদা পুলিশ ও বরোদার স্বাস্থ্য কর্মীদের জন্য পাঠান ব্রাদার্স (ইরফান/ইউসুফ) ৪০০০ মাস্ক পাঠানোর ব্যবস্থা করেছেন ইতিমধ্যেই। পুনের একটি এনজিও’র মাধ্যমে ১ লক্ষ টাকা আর্থিক সাহায্য করেছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। দিনদু’য়েক আগে একটি চালের কোম্পানিকে ৫০ লক্ষ টাকা আর্থিক সাহায্যের কথা ঘোষণা করেছিলেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। রাজ্যের সরকারি স্কুলগুলোতে আশ্রয় নেওয়া গরিব ফুটপাথবাসীদের মুখে অন্ন তুলে দিতে সৌরভের এই মানবিক পদক্ষেপ নজর কেড়েছিল অনুরাগীদের।

এছাড়াও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের তহবিলে করোনা মোকাবিলায় ২৫ লক্ষ টাকা অনুদান করেছে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গল। ভারতীয় ক্রিকেটের ফার্স্ট ম্যান ও ফার্স্ট লেডি এখন পর্যন্ত করোনা মোকাবিলায় সাধারণ মানুষকে জ্ঞ্যান দিয়ে গেলেও এখনও পর্যন্ত সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়নি৷ বিরাট কোহলি ও অনুষ্কা শর্মার পাশাপাশি এই মহামারীর বিরুদ্ধে অর্থ সাহায্যের কথা এখনও পর্যন্ত ঘোষণা করেননি প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক তথা দু’বারের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিও৷