মুম্বই: ইতিহাসে প্রথমবার! ২০১৯ বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বেছে নেওয়া হয়েছে ফাইনাল ম্যাচে সর্বাধিক বাউন্ডারির মারার ভিত্তিতে৷ যা মেনে নিতে পারছেন না ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা৷ তাই সুপার ওভারও টাই হলে সুপার ওভার শুট-আউটের মাধ্যমে চ্যাম্পিয়ন বেছে নেওয়ার পরামর্শ দিলেন সচিন রমেশ তেন্ডুলকর৷

রবিবাসরীয় লর্ডস পেয়েছে নতুন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন৷ কিন্তু তাও আবার বিতর্কে ঘেরা৷ ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ডের ৫০ ওভারের লড়াই টাই হওয়ার পর ফাইনাল গড়ায় সুপার ওভারে৷ কিন্তু ইংরেজ-কিউয়িদের রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে সুপার ওভারও টাই হয়৷ ফলে আইসিসি-র উদ্ভট নিয়মে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয় ইংল্যান্ড৷ কারণ ম্যাচ ও সুপার ওভার মিলিয়ে বেশি সংখ্যক বাউন্ডারি মারে ইয়ন মর্গ্যানের দল৷ ফলে বিশ্বসেরা শিরোপা ওঠে মর্গ্যানদের হাতে৷ আর ভালো খেলেও কম বাউন্ডারি মারার কারণে রানার্স হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় কেন উইলিয়ামসনদের৷

আরও পড়ুন: তেন্ডুলকরের বিশ্বকাপ দলে জায়গা হল না ধোনির

বিশ্বকাপে ফাইনালে সুপার ওভার ফাইনাল টাই হওয়ার পর বাউন্ডারি মারার নিয়মে ইংল্যান্ডকে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বেছে নেওয়া প্রসঙ্গে সচিন বলেন, ‘আমার মনে হয়, বাউন্ডারির মাধ্যমে চ্যাম্পিয়ন বেছে নেওয়ার পরিবর্তে আরও এক সুপার ওভার হওয়া দরকার৷ শুধু মাত্র বিশ্বকাপ ফাইনাল নয়, যে কোনও টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রে এমনটা করা যেতে পারে৷ ফুটবলে যেমন এক্সটা-টাইমেও ম্যাচ ড্র হলে পেনাল্টি শুট-আউট হয়, ঠিক তেমনই৷’

আরও পড়ুন: সাহসী ‘বিগ’ বেন, অভিশপ্ত ইডেনের শাপমুক্তি ঐতিহাসিক লর্ডসে

লর্ডসে রুদ্ধশ্বাস লড়াই টাই হওয়ার পর ইংল্যান্ডকে যখন বেশি বাউন্ডারি মারার নিয়মে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বেছে নেওয়া হয়, তখনই সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়মের সমালোচনা করা হয়৷ নিয়মের তীব্র সমালোচনা করেন টিম ইন্ডিয়ার ভাইস-ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা৷ ২০১৯ বিশ্বকাপে সর্বাধিক রানের (৬৪৮) মালিক রোহিত টুইটারে লেখেন, ‘”Some rules in cricket definitely needs a serious look in.”

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপে ‘হ্যান্ড অফ গডে’র স্মৃতি ফিরল ‘ব্যাট অফ গডে’

২০১১ বিশ্বকাপের ম্যান অফ দ্য টুর্নামেন্ট যুবরাজ সিং টুইটে লেখেন, “I don’t agree with that rule! But rules are rules congratulations to England on finally winning the World Cup, my heart goes out for the Kiwis they fought till the end. Great game an epic final!!!!,”

আরও পড়ুন: নতুন কোচের খোঁজ শুরু করল ভারতীয় বোর্ড