সচিন তেন্ডুলকর ৷

মুম্বই: খেলাধূলোয় সারাজীবনের স্বীকৃতি হিসেবে জায়ান্টস ইন্টারন্যাশানল অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন সচিন রমেশ তেন্ডুলকর৷ লিটল মাস্টারের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেবেন বিজেপি প্রেসিডেন্ট অমিত শাহ৷

গত বছর নভেম্বরে ২৪ বছরের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কেরিয়ারকে গুডবাই জানান সচিন৷  নিজের ঘরের মাঠ ওয়াংখেড়ে-তে তাঁর প্রিয় বাইশ গজকে বিদায় জানানোর দিনেই দেশের প্রথম ক্রীড়াবিদ হিসেবে ভারতরত্ন খেতাব পান মাস্টার ব্লাস্টার৷ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তাঁর অসামান্য অবদানের জন্য কেরিয়ারে বহু পুরস্কার পেয়েছেন চল্লিশোর্ধ মারাঠি৷ এবার একটু অন্য ধরনের পুরস্কার পাচ্ছেন ক্রিকেটঈশ্বর৷

সচিন ছাড়া অভিনয় জগতে তাঁর সারাজীবনের স্বীকৃতির পুরস্কার পাচ্ছেন হেলেন৷ এছাড়াও আরও ছ’টি বিভাগে এই পুরস্কার পাচ্ছেন গুণীজনরা৷ সাংবাদিকতায় এই পুরস্কার পাচ্ছেন বাহুভাই শাহ৷ ১৭ সেপ্টেম্বর, ১৯৭২ নানা চুদাসামার তত্ত্বাবধানে জায়ান্টস ইন্টারন্যাশানল গঠিত হয়৷ মানবিকতা, অখণ্ডতা-সহ বিভিন্ন বিভাগে সারাজীবনের স্বীকৃতি হিসেবে এই পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে গত ৩৫ বছর ধরে৷ জায়ান্টস ইন্টারন্যাশানল একজিকিউটিভের ওয়ার্ল্ড চেয়ারপার্সন শাইনা এনসি জানান, ‘ভারতে এই সংস্থার প্রায় ৬০০টি শাখা রয়েছে৷ এছাড়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, আফ্রিকা, ইউক্রেন-সব বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এর শাখা রয়েছে৷’

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.