স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: লকডাউনের সময় মুখ্যমন্ত্রী রাস্তায় বেরোচ্ছেন বলে লাগাতার তাঁকে আক্রমণ করছেন রাজ্য বিজেপির নেতারা। দিলীপ ঘোষরা বলছেন, মুখ্যমন্ত্রী যদি আইন না মানেন তাহলে সাধারণ মানুষ কেন লকডাউন মানবে? কিন্তু দিলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে একমত হলেন না তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া সব্যসাচী দত্ত। রাস্তায় নেমে মানুষকে সচেতন করার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসা করলেন তিনি।

বিধাননগরের প্রাক্তন মেয়র তথা বিজেপি নেতা সব্যসাচী বলেন, “মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী যেভাবে রাস্তায় নেমে অনুরোধ করছেন তাতে অভূতপূর্ব সাড়া মিলেছে। রাজ্য এবং কেন্দ্র যৌথভাবে বাংলার মানুষের জন্য চেষ্টা করছে।” করোনাভাইরাসের জেরে লকডাউন শুরু হতেই রাস্তায় নেমেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

স্বাস্থ্যকর্মী থেকে সাধারণ মানুষকে ভরসা জোগাতে কখনও হাসপাতালে আবার কখনও বাজারে গিয়ে অভাব অভিযোগ শুনছেন, সাধারণ মানুষকে সতর্ক করতে নিজের হাতে এঁকে বুঝিয়ে দিচ্ছেন সোশ্যাল ডিসটেন্স কীভাবে বজায় রাখবেন। আবার কখনও আবার বিতরণ করছেন খাদ্যসামগ্রী। মমতার এই তৎপরতার প্রশংসা করেছেন রাজ্যপালও। কিন্তু কয়েকদিন আগেই একটি ভিডিও বার্তায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই তৎপরতারই সমালোচনা করেছেন দিলীপ ঘোষ।

তিনি বলেন, “করোনাভাইরাসের সংক্রমণে বিশ্বের উন্নত সব দেশও শ্মশানে পরিণত হয়েছে। সেকথা জেনেও মুখ্যমন্ত্রী রোজ রাস্তায় বেরোচ্ছেন। সঙ্গে লোক নিয়ে ঘুরছেন। মুখ্যমন্ত্রীর রাস্তায় বেরিয়ে খাবার বিতরণ করার দরকার নেই, লোককে বোঝানোর দরকার নেই। সেজন্য সরকারি কর্মচারীরা রয়েছেন। ক্লাব রয়েছে, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী নিজে আইন ভাঙলে সাধারণ মানুষ কেন আইন মানবে?”

যদিও সব্যসাচীর এই মন্তব্য নিয়ে এখনও রাজ্যে নেতৃত্ব কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি। রবিবার সল্টলেকের বিভিন্ন এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে চাল-ডাল-আলু-সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী দিয়ে সাহায্য করেন রাজারহাট-নিউটাউনের বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত। এই কর্মসূচি অনির্দিষ্টকাল পর্যন্ত চলবে বলে জানান তিনি।

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।