স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কলকাতা এবং বিধাননগরের দুই প্রাক্তন মেয়র-ই কী বিজেপিতে যোগ দেবেন বুধবার। রাজধানীতে কী তাঁরা বিজেপির পতাকা তুলে নেবেন? বুধবার কলকাতার রাজনৈতিক মহলে এই জল্পনা তৈরি হয়েছে। সূত্রের খবর, মনে করা হচ্ছে, শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং সব্যসাচী দত্ত দুজনেই দিল্লিতে বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন। যদিও কলকাতা ২৪x৭কে টেলিফোনে সব্যসাচী দত্ত বলেন, “সব বাজে কথা।”

শোভনকে নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে উঠেছে মঙ্গলবার রাত থেকেই। শোনা গিয়েছে, বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়েই দিল্লিতে বিজেপির পতাকা হাতে নেবেন শোভন। ইতিমধ্যেই বুধবার দুপুরে কলকাতার রাজনৈতিক মহলে খবর ছড়িয়ে পড়ে, বিধাননগরের প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচী দত্ত ও বিজেপির পথে। এর মাঝেই সংবাদ সংস্থা ANI টুইট করে জানায়, শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং সব্যসাচী দত্ত বিজেপিতে যোগদান করছেন।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের বক্তব্য, শোভন এবং সব্যসাচী একদিনে বিজেপিতে যোগদান করছেন, যা শাসক তৃণমূলের জন্য ভালো বিজ্ঞাপন নয়। আর মাধ্যমে, আবার প্রমাণিত হলো, তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরে ক্ষোভ নিয়ে যাঁরা রয়েছেন, তাঁরা বিজেপিকে নিশ্চিত গন্তব্য বলে মনে করছেন।

তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা বিধাননগর পুরসভার প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচী দত্তের সঙ্গে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সাম্প্রতিক অতীতে একাধিক বৈঠক হয়েছে। বিজেপির নির্বাচন ম্যানেজমেন্ট কমিটির আহ্বায়ক মুকুল রায় রাজনীতিতে সব্যসাচীর ‘গুরু’ বলেই পরিচিত৷ সব্যসাচী দত্তের সঙ্গে তাঁর বাড়িতে এবং বাড়ির বাইরেও বৈঠক করেছেন মুকুল রায়৷

অনেকেই মনে করেছিল, লোকসভা নির্বাচনের আগেই সব্যসাচী বিজেপিতে আসবেন। কিন্তু, তা হয়নি। অন্য দিকে, বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর করা সমালোচনার মুখে পড়ে মেয়র পদ ছাড়েন শোভন। পরে দল তাঁকে মুলস্রোতে ফিরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলেও আসেননি শোভন। আজ তিনি বিজেপির পথে।