মস্কো-ওয়াশিংটন:  ফের কৃষ্ণসাগরের আকাশে মুখোমুখি আমেরিকা এবং রাশিয়ার যুদ্ধবিমান। যা নিয়ে নতুন করে ফের উত্তেজনা ছড়িয়েছে আমেরিকা এবং রাশিয়ার মধ্যে।

জানা গিয়েছে একটি মার্কিন গোয়েন্দা বিমান কৃষ্ণসাগরের উপর দিয়ে উড়ে যাওয়ার সময় সেদিকে ধেয়ে আসে আরও একটি রুশ সুখোই এসইউ-২৭ যুদ্ধবিমান। বিপদজ্জনকভাবে কার্যত মুখোমুখি এসে যায় দুদেশের যুদ্ধবিমান। রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রকের তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে যে, রাশিয়ার একেবারে আকাশসীমার কাছে চলে আসা মার্কিন ওই গোয়েন্দা বিমানট। মার্কিন ওই বিমানটি পি-৮এ পোসেডিয়ন মডেলের ছিল বলেও রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে। তবে মার্কিন ওই যুদ্ধবিমানটিকে রাশিয়ার আকাশসীমা থেকে তাড়া করে তাড়িয়ে দেওয়া হয় বলেও জানানো হয় মস্কোর তরফে।

তবে মার্কিন বিদেশমন্ত্রক রাশিয়ার এহেন দাবি উড়িয়ে দিয়েছে। তাঁদের পালটা দাবি, মার্কিন গোয়েন্দা বিমানটি কৃষ্ণসাগরে আন্তর্জাতিক জলসীমার আকাশে ছিল। কিন্তু হঠাত করেই রাশিয়ার একটি যুদ্ধবিমান মার্কিন যুদ্ধবিমানের গতিরোধ করে বলে দাবি মার্কিন বিদেশমন্ত্রক। যা আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করেছে বলেই দাবি। মার্কিন গোয়েন্দা বিমানটি থেকে তোলা সুখোই যুদ্ধবিমান উড়ে যাওয়ার ছবি ও ভিডিও ইতিমধ্যে প্রকাশ করেছে আমেরিকা।

রুশ যুদ্ধবিমানের তাড়া খেয়ে মার্কিন গোয়েন্দা বিমানটি রাশিয়ার সীমান্ত থেকে নিরাপদ দূরত্বে চলে যায় বলে জানিয়েছে রুশ মন্ত্রক। গত ৩ জুলাই ক্রিমিয়া প্রজাতন্ত্রের কাছে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে বলে রুশ বার্তা সংস্থা স্পুৎনিক জানিয়েছে। মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটো বর্তমানে কৃষ্ণসাগরে ১২ দিন-ব্যাপী সামরিক মহড়া চালাচ্ছে।

আমেরিকা ও ব্রিটেনসহ ১৯ দেশের প্রায় ৩,০০০ সেনা গত ১ জুলাই থেকে এই মহড়া শুরু করেছে। আর এই মহড়ায় অংশ নেওয়া যুদ্ধবিমান ও জাহাজগুলোকে নজর রেখেছে রাশিয়া। উল্লেখ্য, এর আগে গত মঙ্গলবার রাশিয়ার জলসীমার কাছে একটি ব্রিটিশ ডেস্ট্রয়ার ও কানাডার একটি ফ্রিগেটকে আটকে দিয়েছিল মস্কো। রাশিয়ার জলসীমার কাছে মার্কিন সামরিক জোট ন্যাটোর তৎপরতা বৃদ্ধিতে রাশিয়া বারবার উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছে।