ইরান: আমেরিকা এবং ইরানের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। ইরাক এবং আমেরিকার মধ্যে মুহুর মুহুর চলছে মিসাইল হানা। যে কোনও মুহূর্তে বেঁধে যেতে পারে মহাযুদ্ধ। ইরাকের মাটিতে চলছে এই হামলা। এই অবস্থায় দেশের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আরও মজবুত করতে চলেছে ইরাক। জানা যাচ্ছে, রাশিয়ার কাছ থেকে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এস-৩০০ এবং এস-৪০০ কিনতে পারে ইরাক।

রুশ সংসদ দুমা’র সামরিক বিষয়ক কমিটির উপ-প্রধান আলেকজান্ডার শ্রেইন জানিয়েছেন, এস-৩০০ ও এস-৪০০ কেনার বিষয়ে মস্কোর সঙ্গে আলোচনা করছে বাগদাদ। যদিও এখনও পর্যন্ত এই বিষয়ে কিছুই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। খুব শীঘ্রই এই বিষয়ে আলোচনা হবে বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে সোমবার ইরানে নিযুক্ত ইরাকের রাষ্ট্রদূত সা’দ জাওয়াদ কানদিল স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, এস-৩০০ কেনার বিষয়ে আলোচনা চলছে। এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাটি রাশিয়া থেকে কেনার সম্ভাবনা রয়েছে।

রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রকের এক আধিকারিক ইগোর কুরতেশেংকো বলেছেন, রাশিয়া ইরাকের প্রতিরক্ষা সক্ষমতা বাড়াতে এস-৪০০ দিতে পারে। বাগদাদ বিমান বন্দরে মার্কিন ড্রোনের সাহায্যে ইরানি জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার ঘটনার মধ্যদিয়ে ইরাকের জন্য আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার প্রয়োজনীয়তা বেড়ে গিয়েছে। আর সেজন্যেই মস্কো বাগদাদকে বিশ্বের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা দিচ্ছে। অবশ্য আমেরিকা বিশ্বের সব দেশকেই এই হুমকি দিয়ে রেখেছে যে, রাশিয়া থেকে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনলেই অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়তে হবে। আর সেই নিষেধাজ্ঞাকে উপেক্ষা করেই বাগদাদ এস-৩০০ এবং এস ৪০০ কেনে কিনা সেটাই এখন দেখার।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও