মস্কো: টিকা বাজারজাত করার আগেই রুশ দাবিতে শোরগোল। দুনিয়া জুড়ে প্রশ্ন, এমন দাবি কেন করছে রাশিয়া। করোনাভাইরাসের টিকা স্পুটনিক ভি (স্পুটনিক ফাইভ) এর কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে তার দায় নেবে রাশিয়া সরকার।

টিকা উদ্ভাবনের জন্য অর্থ জোগান দেওয়া রুশ রাষ্ট্রীয় তহবিলের প্রধান কিরিল দিমিত্রিয়েভ জানিয়েছেন, ভ্যাকসিনটির কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার সব দায় ক্রেতাদের নিতে হবে না, খানিক অংশ উদ্ভাবকেরাও নেবেন। এতে স্বস্তি ক্রেতা দেশগুলি।

যদিও রয়টার্স জানাচ্ছে, রুশ সরকারের এমন সিদ্ধান্তের ফলে টিকা ব্যবহারের পর অপ্রত্যাশিত পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিলে ব্যয়বহুল ক্ষতিপূরণের মুখে পড়বে উদ্ভাবকেরা।

রাশিয়ার ক্ষতিপূরণ দাবি অনেক দেশ থেকে আলাদা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের সম্পূর্ণ দায় সরকারেের। এর ফলে উদ্ভাবকেরা সুরক্ষিত। কিন্তু রাশিয়া বলছে উদ্ভাবকদের দায় থাকছে। করোনাভাইরাসের টিকার জন্য বিশ্বে তীব্র প্রতিযোগিতা চলছে।

কয়েকটি সম্ভাব্য টিকা পরীক্ষা করা হয়েছে। রাশিয়ার স্পুটনিক-ভি টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার দায় নেওয়ার দাবি চমকপ্রদ।এরফলে এই টিকার বাজার দখলের লড়াইয়ে অনেক এগিয়ে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের প্রধান কিরিল দিমিত্রিয়েভ জানান, টিকা নিয়ে রাশিয়া এতটাই আত্মবিশ্বাসী যে তারা পূর্ণ দায়মুক্তি চায় না। অন্য যে কোনও দেশের টিকার সঙ্গে এর বড় পার্থক্য।

অন্যদিকে, আরও একটি ভ্যাক্সিন আনতে চলেছে মস্কো। খুব বেশি দেরি নেই। অক্টোবরেই আসছে সেই ভ্যাক্সিন। ১৫ অক্টোবরেই ভ্যাক্সিন আনা হবে বলে জানানো হয়েছে।

দ্বিতীয় ভ্যাকসিন মানব শরীরে আরও বেশিদিন ইমিউনিটি বাঁচিয়ে রাখবে বলে দাবি রাশিয়ার বিজ্ঞানীদের। রাশিয়ার স্টেট রিসার্চ সেন্টার অফ ভায়েরোলজি অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি ভেক্টর এমনই দাবি করেছে।

ভেক্টরের দাবি এবারের ভ্যাকসিন মানুষের শরীরে করোনা প্রতিরোধ ক্ষমতা বজায় রাখবে ছয় মাসেরও বেশি সময় ধরে। ভেক্টরের প্রধান আলেকজান্ডার রিজিকোভ জানান হয়তো সারাজীবনের জন্য রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করতে পারবে না এই ভ্যাকসিন। তবে আগের ভ্যাকসিনের তুলনায় সময় বেশি পাবেন মানুষ। ছয় মাস ধরে এই ভ্যাকসিনের কার্যকারীতা বজায় থাকবে বলে জানিয়েছেন আলেকজান্ডার।

ইনস্টাগ্রামে এক লাইভ অনুষ্ঠান চলাকালীন তিনি জানান একথা। প্রয়োজনে এই ভ্যাকসিন দ্বিতীয়বারও নেওয়া যেতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি। তাঁর বক্তব্যকে উদ্ধৃত করে রাশিয়ান সংবাদ সংস্থা তাস জানিয়েছে ফের ভ্যাকসিন নেওয়া নিরাপদ ও কার্যকরী। এমনই দাবি করেছে ভেক্টর।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।