মস্কোঃ  একদিকে যখন আমেরিকার সঙ্গে ক্রমশ উত্তেজনা বাড়ছে ইরানের অন্যদিকে তখন সামরিক তৎপরতা বাড়াছে ন্যাটো। বিশেষ করে যেভাবে রাশিয়ার সীমান্তে ক্রমশ শক্তি বাড়াচ্ছে ন্যাটো তাতে বেশ উদ্বেগে মস্কো। আর সেজন্যে ইতিমধ্যে দেশের সেনাবাহিনীকে সবরকম পরিস্থিতির জন্যে তৈরি থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একদিকে যখন উত্তেজনায় ভরা পরিস্থিতি তখন বাল্টিক সাগরে শক্তিশালী সামরিক মহড়া চালাল রাশিয়া। মার্কিন নেতৃত্বাধিন ন্যাটো সামরিক জোটের সঙ্গে উত্তেজনার মাঝেই এই সিদ্ধান্ত মস্কোর। বিশাল এই সামরিক মহড়ায় কালিনিনগ্রাদে মোতায়েন বাল্টিক বহর অংশ নেয়। এই অঞ্চল দিন দিন রাশিয়া ও ন্যাটো জোটের মধ্যে সামরিক প্রতিদ্বন্দ্বিতার ক্ষেত্র হয়ে উঠছে।

মহড়ায় বাল্টিক বহরের সেনারা একটি নিরাপত্তা অভিযান পরিচালনা করে এবং সেনা আধিকারিকদের সামনে মার্শাল আর্ট প্রদর্শন করে। বাল্টিক বহর প্রতিষ্ঠার ৩১৬ বছর পূর্তি উপলক্ষে শনিবার এই সামরিক মহড়ার আয়োজন করা হয়।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আর্কটিকের বিরাট অঞ্চলের ওপর রাশিয়ার আধিপত্য দাবি করায় রুশ সামরিক বাহিনীর মধ্যে বাল্টিক বহরের গুরুত্ব বেড়ে গিয়েছে। ১৭০৩ সালে রাশিয়ার পিটার দ্যা গ্রেট বহর সুইডেনের বিরুদ্ধে বিজয় অর্জন করেছিল। ওই বহরের সঙ্গে বাল্টিক বহরের সম্পর্ক রয়েছে। এ বহরে চলতি বছর একটি কারাকুর্ত-ক্লাস করভেট যুদ্ধজাহাজ যুক্ত করা হয়েছে যাতে কালিবার মিসাইল ও মাস্তা স্বয়ংক্রিয় কামান রয়েছে।