টরন্টো: থ্রিলার পরিসমাপ্তি ঘটল গ্লোবাল টি-২০ প্রথম সংস্করণের। সৌজন্যে ক্যারিবিয়ান পিঞ্চ হিটার আন্দ্রে রাসেলের ২০ বলে মারকাটারি ৪৬। মেগা ফাইনালে নির্ধারিত ২০ ওভারে উইনিপেগ হকস বনাম ভ্যাঙ্কুভার নাইটস ম্যাচ টাই হওয়ায় সুপার ওভারে নিষ্পত্তি ঘটল ম্যাচের।

শাইমান আনোয়ারের বিধ্বংসী ৪৫ বলে ৯০ রানে ভর করে রবিবার প্রথমে ব্যাট করে বিপক্ষকে ১৯৩ রানের বড় লক্ষ্যমাত্রা ছুঁড়ে দেয় উইনিপেগ হকস। জবাবে রান তাড়া করতে নেমে ৫৩ রানে ৪ উইকেট খুঁইয়ে বিপাকে পড়ে যায় ভ্যাঙ্কুভার নাইটস। সেখান থেকে অধিনায়ক শোয়েব মালিকের ৩৬ বলে ৬৪ রানের ইনিংস তাদের ম্যাচে ফেরালেও শেষ ১৯ বলে ৫৪ রান প্রয়োজন হয়ে পড়ে ভ্যাঙ্কুভারের। এমন অবস্থায় জ্বলে ওঠে দ্রে রাসের ব্যাট। ২০ বলে তাঁর অপরাজিত ৪৬ রানের ইনিংসকে প্ল্যাটফর্ম করে নির্ধারিত ২০ ওভারে সমসংখ্যক রানে শেষ করে ভ্যাঙ্কুভার। ৩টি চার ও ৫টি ছক্কায় ম্যাচের মোড় ঘোরান তিনি।

আরও পড়ুন: চোখের জলে কোর্ট ছাড়লেন সেরেনা, রজার্স কাপ চ্যাম্পিয়ন নাদাল

ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। থ্রিলার ম্যাচে সুপার ওভারে যদিও বাজিমাত করে যায় উইনিপেগ। ২ উইকেট হারিয়ে ৬ বলে মাত্র ৯ রান তুলতে সমর্থ হয় ভ্যাঙ্কুভার নাইটস। ৭ রান আসে রাসেলের ব্যাট থেকে। ২ বল বাকি থাকতেই সেই রান তুলে নেয় উইনিপেগ হকস। ব্যর্থ হয়ে যায় রাসেলের অতিমানবিক ইনিংস। গ্লোবাল টি-২০ প্রথম সংস্করণে শিরোপা দখল করে নেয় লিন, ডুমিনি সমৃদ্ধ উইনিপেগ হকস।

আরও পড়ুন: নিজেকে ছাপিয়ে যাওয়ার দিনেই বিরাটস্তুতি মহারাজের

উইনিপেগ হকসের সাইমন আনোয়ারকে নিয়েও আলাদা করে বলতেই হয়। প্রথমে ব্যাট করে এদিন চ্যাম্পিয়ন দলের হয়ে ৯০ রানের ধামাকেদার ইনিংস খেলে দলকে ২০০ রানের দোরগোড়ায় নিয়ে যেতে সাহায্য করেন সংযুক্ত আরব আমিরশাহির এই ব্যাটসম্যান। ২০০ স্ট্রাইক রেটে তাঁর ৪৫ বলের ইনিংস সাজানো ছিল ৮টি চার ও ৭টি ছয়ে। এছাড়াও লিনের ২১ বলে ৩৭ ও ডুমিনির ২৭ বলে ৩৩ রান উইনিপেগকে বড় রান তুলতে সাহায্য করে।