নয়াদিল্লি: মঙ্গলবার ফের একবার কমল টাকার দাম৷ এদিন তা কমে হয়েছে প্রতি ডলারে ৭০.০৯ টাকা। সোমবারই ভারতীয় টাকা দুর্বল হয়ে পড়ে এবং বাজার খোলার সময় তার দাম ছিল ৬৯.৯৩ টাকা। এতটা পতন আগে কখনও হয়নি৷

এর আগে ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে নেমে এসেছিল পুরো একটাকা৷ শুক্রবার মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল ট্রাম্প তুরস্ক থেকে আমদানির পণ্যের উপর শুল্ক চাপানোয় আর্থিক বাজারে প্রভাব পড়েছে৷ তুরস্কের মুদ্রা লিরার দাম ৪৫ শতাংশ নেমে যায় এদিন৷

পড়ুন: স্টেট ব্যাংকে ক্ষতির ধারা অব্যাহত, নামল শেয়ার সূচক

মঙ্গলবার ফের একবার প্রভাব পড়ে৷ লিরার অবমূল্যায়ণেই এই অবস্থা বলে জানা গিয়েছে৷ এবং এর ফলে আন্তর্জাতিক স্তরে আর্থিক সংকট বৃদ্ধি পেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

ডলারের দাম এভাবে বৃদ্ধি পেতে থাকলে তা জনসাধারণের ব্যাংক ব্যালান্সে যে যথেষ্ট ধাক্কা দেবে তেমনটাই মনে করা হচ্ছে৷ জ্বালানি তেল আমদানিতে যেভাবে বেশি অর্থ বেরিয়ে যাবে তেমনই রয়েছে মূল্যবৃদ্ধির আশঙ্কাও৷ এর ফলে সুদের হারও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।