কলকাতা: পরিচালক অরিন্দম শীলের ব্যাপারে অশালীন আচরণের অভিযোগ করার পরই তাঁকে সেটলমেন্টের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল৷ কলকাতা 24×7-এ এসে এমনই দাবি করলেন টলিউড অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা মিত্র৷

সম্প্রতি পরিচালক অরিন্দম শীলের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করেছেন রূপাঞ্জনা মিত্র। তাঁর অভিযোগ, ইস্টার্ন বাইপাসের কাছে অফিসে স্ক্রিপ্ট পড়ে শোনানোর অছিলায় তাঁর মাথায়-পিঠে হাত বুলিয়েছিলেন অরিন্দম। ঘনিষ্ঠ আলিঙ্গনের মাধ্যমে তাঁকে কদর্য ইঙ্গিত দিয়েছিলেন বলেও দাবি করেছেন রূপাঞ্জনা৷ তিনি এও বলেছেন যে, অরিন্দম শীল একটি অত্যন্ত বদমাশ, বদ লোক। ওঁর মুখোশ খোলার সময় এসে গিয়েছে। তিনি আগেও আর এক অভিনেত্রীর সঙ্গে এমনটা করেছেন।

রূপাঞ্জনার কথায়, আমি যখন ভেবেছি এটা নিয়ে লিখব তখন যে সংস্থা অরিন্দম শীলকে টেনে তুলেছিল তারা আমাকে ফোন করে৷ ভূমিকন্যা সিরিয়াল করার সময় অনেক দেনা হয়ে গিয়েছিল অরিন্দম শীলের। প্রচুর লোকেদের পেমেন্ট আটকে গিয়েছিল। ওই প্রোডাকশন হাউস ওকে উদ্ধার করেছিল। ওটা একটা ভাল প্রোকাডশন হাউস। ওই হাউসের যিনি আমাকে ফোন করেছিলেন তিনি খুব ভাল মানুষ। তিনি বললেন, আমার অনেক কোটি টাকা ঢুকে গিয়েছে৷ তুমি সেটল করে নাও। অনেকবার অরিন্দম শীলের সঙ্গে উনি আমাকে বসাতে চেয়েছেন৷ এমনকি এও বলেছেন, অলরেডি একজন হিরোইন সেটল করে গিয়েছেন৷ কেউ যদি দোষ না করে তাহলে সেটল করিয়ে নেওয়ার কথা কেন উঠছে?

রূপাঞ্জনা এও দাবি করেছেন যে, প্রোডাকশন চলাকালীন আমার সমসাময়িক এক অভিনেত্রীকে শ্লীলতাহানি করার চেষ্টা করেছিল অরিন্দম শীল৷ ওই অভিনেত্রী অরিন্দমকে চড় মারে৷ পরে আর্টিস্ট ফোরামে অভিযোগ জানিয়েছিলেন ওই অভিনেত্রী৷

উল্লেখ্য, অরিন্দমের বিরুদ্ধে আপত্তিকর আচরণের অভিযোগ নিয়ে রূপাঞ্জনার পাশে দাঁড়িয়েছেন পরিচালকের প্রাক্তন স্ত্রী তনুরুচি শীল৷ টুইটারে স্পষ্টভাবে লিখেছেন, সুবিধে নিতেই দলবদল করেছেন অরিন্দম। অরিন্দমের স্ত্রী তনুরুচি আলাদা পোস্টে লেখেন,”বিবাহবিচ্ছেদ মামলা শেষ হয় নি। কিন্তু অরিন্দম স্ত্রীর সঙ্গে যৌথভাবে কেনা ফ্ল্যাটে শুক্লা দাসের সঙ্গে থাকছেন।”