ছবি: ট্যুইটারের সৌজন্যে

কলকাতা: প্রেম স্বাদ কুছ কুছ খাট্টি, কুছ কুছ মিঠি। মানে ভালবাসার সঙ্গে খানিকা ঝগড়া, কতকটা খুনসুটি আর অল্প একটু অভিমান। এই চারটির মধ্যে আপাতত খুনসুটিতে মত্ত টলিউডের লাভবার্ডস দেব ও রুক্মিণী।

সম্প্রতি নায়িকা তাঁর ট্যুইটার হ্যান্ডেলে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। যেখানে দেখা যাচ্ছে দুই কপত-কপতি মজেছেন খুনসুটিতে। কখনও দেব তো কখন রুক্মিনী, একেঅপরের লেগপুল করছে। তবে গোটাটাই ভীষণ মিষ্টি। যা দেখে অনুরাগীরা চোখ জুড়াচ্ছেন। কমেস্ট বক্স ভরছে, ‘হাউ স্যুইট’ কমেন্টে।

ছবি: ট্যুইটারের সৌজন্যে

জল্পনা কাটিয়ে এখন দেবের প্রেমিকা, থুরি বাগদত্তা রুক্মিণী। হাতে খোদাই করা একে-অপরের নাম। নায়কের ব্যক্তিগত জীবন থেকে বিজনেস সবদিকে নজর তাঁর। তাইতো প্রযোজক দেবের আগামী ছবির অংশ না হয়েও তাঁকে দেখা গিয়েছে মিটিংয়ে, শ্যুটিং স্পটে। টলিপাড়া তো বলছে, একে অন্যকে চোখে হারাচ্ছেন ওঁরা। তাইতো ‘আমি তুমি কাছাকাছি’। বাকি সব থোরাই পরোয়া করি!’

এদিকে ১২ অক্টোবর মুক্তি পেতে চলেছে ‘দেব এন্টারটেনমেন্ট ভেনচারস’র নতুন ছবি ‘হইচই অ্যানলিমিটেড’। কিন্তু মুক্তির আগে, সেন্সরের গেঁড়োয় পড়েছে এই সিনেমা। আগা-গোড়া কমেডি এই ছবিতে রয়েছে ‘উত্তর প্রদেশ’ শব্দটি। যাবে আপত্তি সেন্সর কর্তাদের। তাঁদের সোজা কথা বাদ দিতে হবে এই সংলাপটি। তাহলে মিলবে ছাড়পত্র।

আরও পড়ুন: থ্রি ইডিয়টস্-এর মিলিমিটার বাস্তবে এখন সেন্টিমিটার, দেখুন ছবি

সেন্সর বোর্ডের এমন সিদ্ধান্তে বেঁকে বসেছেন পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, “এছবিতে এমন কোনো সংলাপের ব্যবহার করা হয়নি যা উত্তর প্রদেশের মানুষদের ভাবাবেগে আঘাত করে। তাই তিনি শব্দটি এডিট করতে নারাজ।” যদিও এবিষয়ে এখনও পর্যন্ত মুখ খোলেননি দেব।

তবে ইতিমধ্যে প্রচারে শহর জুড়ে হইচই বাঁধিয়ে ফেলেছেন দেব। সঙ্গে গোল বাঁধিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। হঠাৎই উইকিপিডিয়াতে লেখা ‘হইচই’- সিনেমার ডিটেলসে চোখে পড়ছে রিমেক শব্দটি। যেখানে বলা হচ্ছে পাকিস্তানি সিনেমা ‘জাওয়ানি ফের নেহি আনি’ সিনেমার রিমেক ‘হইচই আনলিমিটেড”! অথচ শুরু থেকেই ছবির প্রযোজক তথা পরিচালক, নায়ক-নায়িকা এমন কোনও কথাই বলেননি।

আরও পড়ুন: ‘তোমার যৌনাঙ্গটা দেখাও…’ বিতর্ক উস্কে দিলেন আয়ুষ্মান

বিষয়টি প্রথম নজরে আসে দেবের এক ফ্যানের। সে উইকিপিডিয়া পেজটির স্ক্রিনশট নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। আঙুল তোলেন সাংবাদিক ইন্দ্রনীল রয়ের ওপর। জনৈক ব্যক্তিটি পোস্টটিতে লিখেছেন, চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ল দুই চোর।একজন ইন্দ্রনীল অন্যজন অনুপম হাজরা।এরা উইকিপেডিয়াতে নিজেরা এডিট করে বলছে #HoiChoiUnlimited রিমেক।ইন্দ্রনীল @idevadhikari কে বদনাম করার জন্য এসব করছে সাথে @aniket9163’র ও।কোনো লাভ নেই এসব করে।বলিউডের KRK হয়ে আলোচনায় আসতে চাইছে।ছি ছি ছি ইন্দ্রনীল”।

এরপর নায়কে অনুরাগীর পোস্টটি শেয়ার করেন নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে। ক্যাপশনে লেখেন, ‘আমি জানি না খবরটি সত্যতা ঠিক কতোটা। তবে যদি সত্যি হয় আমি লজ্জিত আমার বন্ধুদের এমন ব্যবহারে। বাংলা চলচ্চিত্র দুনিয়ার জন্য এটা খুবই দুঃখের”। এরপরই হইচই পড়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

আরও পড়ুন: দীপিকার বিয়ে নিয়ে এবার মুখ খুললেন করন জোহর

এতসবের পরেও নিজের জায়গায় অনড় সাংবাদিক। ইন্দ্রনীলের কথায়, ” রিকেম-করা কোনও অপরাধ নয়। যদি ‘হইচই অ্যানলিমিটেড’ পাকিস্তানি সিনেমা ‘জাওয়ানি ফের নেহি আনি’ সিনেমার রিমেক হয় তাহলে শিকার করা উচিত। আর প্রশ্ন যখন উঠেছে তখন বিষয়টির সত্যতা প্রমাণ করুক ছবির সংস্থান”। তবে একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, ” উইকিপিডিয়ায় এডিট সবাই করতে পারে। তবে এ কর্ম্মটি তাঁর নয়”।