আবুধাবি: দুর্দান্ত ব্যাটিং৷ আর তাতেই কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে জয় ছিনিয়ে নিল রাজস্থান রয়্যালস৷ কিংস ইলেভেনকে সাত উইকেটে হারিয়ে প্লে-অফের আশা জিইয়ে রাখল রাজস্থান৷ ১৮৬ রান তাড়া করে হাসতে হাসতে ম্যাচ জিতে নেয় রয়্যালসবাহিনী৷ বেন স্টোকস, সঞ্জু স্যামসন, স্টিভ স্মিথ ও জোস বাটলারের ঝোড়ো ইনিংসে ১৫ বল বাকি থাকতেই সাত উইকেট ম্যাচ জিতে নেয় রাজস্থান৷

আগের ম্যাচে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে বড় রান তাড়া করে জেতার আত্মবিশ্বাসও এদিন পরিষ্কার ধরা পড়ে রয়্যালস ব্যাটসম্যানদের মধ্যে৷ আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে বড় রান তাড়া করতে নেমে দারুণ শুরু করেন রয়্যালসের দুই ওপেনার রবিন উথাপ্পা ও বেন স্টোকস৷ ওপেনিং জুটিতে ৫.৩ ওভারে ৬০ রান তুলে রাজস্থানকে রান তাড়া করার ক্ষেত্রে বড় সুবিধা করে দেন৷

২৩ বলে ৩০ রান করে মরুগান অশ্বিনেের বলে আউট হন উথাপ্পা৷ কিন্তু স্টোকস দুর্দান্ত হাফ-সেঞ্চুরি করেন৷ আগের ম্যাচে দুরন্ত সেঞ্চুরির পর এদিন ঝোড়ো হাফ-সেঞ্চুরি করে দলকে জেতান স্টোকস৷ মাত্র ২৬ বলে ৬টি বাউন্ডারি ও ৩টি ছক্কা হাঁকিয়ে ৫০ রান করেন৷ দুই ওপেনার আউট হওয়ার পর সঞ্জু স্যামসন ও স্টিভ স্মিথ ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব নেন৷ ২৫ বলে ৪৮ রানে দারুণ ইনিংস খেলেন স্যামসন৷ তারপর বাকি কাজটা করেন স্মিথ ও বাটলার৷

ম্যাচকে শেষ ওভার পর্যন্ত টেনে নিয়ে না-গিয়ে স্মিথ ও বাটলার দু’জনেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেন৷ স্মিথ ২০ বলে ৩১ এবং বাটলার ১১ বলে ২২ রানের ইনিংস খেলে দলকে জেতান৷ এই জয়ের ফলে প্লে-অফের আশা জিইয়ে রাখল রাজস্থান৷ রবিবার শেষ ম্যাচে তারা কেকেআর-কে হারাতে পারলে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে প্লে-অফের দৌড়ে থাকবে তারা৷

এর আগের প্রথমে ব্যাটিং করে ক্রিস গেইলের দুরন্ত ৯৯ রান ও লোকেশ রাহুলের ৪৬ রানে ভর করে রাজস্থানের সামনে ১৮৬ রানের টার্গেট রেখেছিল কিংস ইলেভেন৷ টানা পাঁচ ম্যাচ জিতে প্লে-অফের দৌড়ে থাকা পঞ্জাবও ম্যাচ জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী ছিল৷ কিন্তু টানা পাঁচ ম্যাচ জয়ের পর তাদের বিজয়রথ থামাল রাজস্থান৷ তবে তাদেরও প্লে-অফের আশা এখনও রয়েছে৷ শেষ ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংসকে হারালে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের প্লে-অফের ওঠার সম্ভাবনা খাকবে৷

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।