তিমিরকান্তি পতি (বাঁকুড়া); সারা রাজ্যের সঙ্গে বাঁকুড়া শহরেও ‘বাংলার রসগোল্লার জি.আই স্বীকৃতির দ্বিতীয় বর্ষ পূর্তি উপলক্ষ্যে ‘রসগোল্লা দিবস’ পালন করলো পশ্চিমবঙ্গ মিষ্টান্ন ব্যবসায়ী সমিতি। বৃহস্পতিবার সংগঠনের বাঁকুড়া জেলা শাখার উদ্যোগে শহরের আকাশ মুক্ত মঞ্চে এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পথ চলতি সাধারণ মানুষকে রসগোল্লা খাওয়ানো হয়। এদিন এই অনুষ্ঠানে সংগঠনের জেলা পদাধিকারী ও সদস্যরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাঁকুড়া পৌরসভার ভাইস চেয়ারম্যান দিলীপ আগরওয়াল। তিনি নিজে সাধারণ মানুষের হাতে রসগোল্লা তুলে দেন।

প্রসঙ্গত, কোনও বিশেষ অঞ্চল থেকে কোন দ্রব্যের উৎসকে স্বীকৃতি দিতেই জি.আই স্বীকৃতি বা জিওগ্রাফিক্যাল ইন্ডিকেশনের তকমা দেওয়া হয়। রসগোল্লার আবিষ্কার পশ্চিমবঙ্গ না ওডিশা, তা নিয়ে লড়াই দীর্ঘদিনের। সেই লড়াইয়ে ২০১৭ সালের ১৪ নভেম্বর এই রাজ্যকে এক ধরনের জয় এনে দিয়েছিল। ঐ দিন ‘বাংলার রসগোল্লা’ জিআই ট্যাগ পেয়েছিল। সেই ঘটনার দ্বিতীয় বর্ষ পূর্তিতে রসগোল্লা দিবস পালনের উৎসবে সারা রাজ্যের সাথে মেতেছে দক্ষিণের জেলা বাঁকুড়াও।

মিষ্টান্ন ব্যবসায়ী সমিতির অভিনব এই উদ্যোগে খুশি শহরবাসী থেকে নানান কাজে আসা জেলার বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ। শেখ কুরবান আলি বলেন, বেশ ভালো লাগলো। বাঁকুড়া শহরের বিভিন্ন মিষ্টির দোকানে সারা বছর যে রসগোল্লা পাওয়া যায় তার চেয়ে অনেক বেশী সুস্বাদু আজকের এই রসগোল্লা। আয়োজকদের পক্ষে পশ্চিমবঙ্গ মিষ্টান্ন ব্যবসায়ী সমিতির বাঁকুড়া শাখার সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত বরাট বলেন, সারা রাজ্যেই আজ রসগোল্লা দিবস পালন করা হচ্ছে। বাঁকুড়া শহরে এদিন ২২ হাজার রসগোল্লা বিলি করা হচ্ছে। যার পুরোটাই সংগঠনের সদস্যরা নিজেদের সাধ্যমতো দিয়েছেন বলে তিনি জানান।