নয়াদিল্লি: দিনদশেক আগের ঘটনা। মাটি থেকে ৮ ফুট ৪ ইঞ্চি লাফিয়ে এক মার্কারকে এড়িয়ে হেডে করা তাঁর গোলটা শোরগোল ফেলে দিয়েছিল ফুটবল মহলে। এতটা উচ্চতায় লাফিয়ে শরীর শূন্যে ভাসিয়ে কেউ কীভাবে এমন গোল করতে পারে, তা নিয়ে চলে বিস্তর চর্চা। ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর করা সেই গোলই লিগ টেবিলে নীচের দিকে থাকা স্যাম্পদোরিয়ার বিরুদ্ধে সিরি-‘এ’তে মূল্যবান তিন পয়েন্ট এনে দিয়েছিল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন জুভেন্তাসকে।

রোনাল্ডোর সেই গোল দেখে স্বাভাবিকভাবেই মুগ্ধ হয়েছিলেন টেনিস তারকা নোভাক জকোভিচ। সেই টানেই হোক কিংবা অন্য কোনও কারণেই হোক, বন্ধু ক্রিশ্চিয়ানোর কাছে স্পটজাম্প শেখার আবদার নিয়ে ছুটে এলেন ‘জোকার’। কাছের বন্ধুর আবদার তো আর ফেলে দেওয়ার নয়। তাই অগত্যা নোভাককে নিয়ে ক্রিশ্চিয়ানো ছুটলেন জিমে। সেখানেই সার্বিয়ান টেনিস তারকাকে স্পটজাম্পের কায়দা শেখালেন পর্তুগিজ ফুটবলের পোস্টার বয়।

আরও পড়ুন: পিছিয়ে পড়েও চার্চিলকে হারাল অ্যারোজ, শীর্ষে থেকেই বছর শেষ করছে ইস্টবেঙ্গল

সম্প্রতি সিআর সেভেনের কাছে জোকারের স্পটজাম্প শেখার সেই ভিডিও ইন্টারনেটে রীতিমতো হটকেকের মতো বিকোল। আর বিকোবে নাই বা কেন। ক্রীড়াক্ষেত্রের দুই ‘লিভিং লেজেন্ড’ যখন এক ফ্রেমে এইভাবে ধরা দেন, তখন সেই ভিডিও ভাইরাল হবে এমনটাই প্রত্যাশিত। হলও তাই। রোনাল্ডোর ইনস্টাগ্রামে ভিডিওটি লাইক করেছেন এখনও ৬৭ লক্ষ মানুষ। জকোভিচের প্রোফাইলে যদিও লাইকের সংখ্যাটা ৫ লক্ষের আশেপাশে। তবু সেটাই বা কম কীসের।

আরও পড়ুন: কলকাতায় ক্রিসমাস পার্টিতে মহিলাদের সঙ্গে অসভ্যতা দুই ক্রিকেটারের

ভিডিওটিতে রোনাল্ডোকে একটি ধূসর রঙের টি-শার্ট ও কালো শর্টসে দেখা যাচ্ছে। আর জকোভিচের পরনে চেরি রঙের টি-শার্ট ও কালো শর্টস। কিছুদূর দৌড়ে এসে লাফিয়ে প্রথমেই দুজনে লাফিয়ে উপরে রাখা একটি দড়ি ছোঁয়ার চেষ্টা করলেন। কিন্তু প্রথম প্রচেষ্টায় ব্যর্থ হন দু’জনেই। তবে বন্ধু জকোভিচকে নিয়ে দ্বিতীয়বারের প্রচেষ্টায় লক্ষ্যে সফল হন সিআর সেভেন। সবমিলিয়ে দুই বন্ধুর স্পটজাম্পের এই ভিডিও ইন্টারনেটে ট্রেন্ডিংয়ের নিরিখে এখন টপ লিস্টে।