লিসবন: ঊরুগুয়ের কাছে হেরে রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রি-কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছিল পর্তুগাল। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে সেই শেষ মাঠে নামা। এরপর তাগুস দিয়ে বয়ে গিয়েছে অনেক জল। রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো হয়ে উঠেছেন জুভেন্তাস সমর্থকদের নয়নের মনি। দিনদুয়েক আগে পিছিয়ে থাকা তুরিনের ক্লাবটিকে প্রায় একার কাঁধে পৌঁছে দিয়েছেন শেষ আটে। কিন্তু ন’মাস হয়ে গেল পর্তুগালের জার্সি গায়ে রোনাল্ডোকে মাঠে দেখেননি তাঁর অনুরাগীরা।

অবশেষে ফের জাতীয় দলে ডাক পেলেন পর্তুগিজ ফুটবলের পোস্টার বয়। দেশের জার্সি গায়ে ৮৫টি গোল করে ফেলা রোনাল্ডো পর্তুগালের তো বটেই, পাশাপাশি পুসকাসকে ছাপিয়ে ইউরোপের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন ২০১৮ জুনে। কিন্তু ধর্ষণ কান্ডে অভিযুক্ত সিআরসেভেনকে ছাড়াই উয়েফা নেশনস কাপের দল সাজান কোচ ফার্নান্দো স্যান্তোস।

বছর চৌত্রিশের স্ট্রাইকারকে ছাড়াই উয়েফা নেশনস লিগের ফাইনালসের যোগ্যতাও অর্জন করে পর্তুগাল। কিন্তু ২০২০ ইউরো কোয়ালিফাইং রাউন্ডে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের স্কোয়াডে রোনাল্ডোকে না রাখার সাহস দেখাতে পারলেন না পর্তুগিজ কোচ।

ইউরো কোয়ালিফায়ারে ঘরের মাঠে আগামী ২৩ মার্চ ইউক্রেন এবং ২৬ মার্চ সার্বিয়ার মুখোমুখি হবে পর্তুগাল। ওই দুটি ম্যাচের জন্য ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের স্কোয়াডে কামব্যাক করলেন সিআরসেভেন। কোয়ালিফায়ারের দু’টি ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে লিসবনে।

উল্লেখ্য, মাদ্রিদ থেকে চলতি মরশুমের শুরুতে তুরিনের ক্লাবে যোগদান করেন পর্তুগিজ ফুটবলের পোস্টার বয়। সেখানে গিয়েও তাঁর স্বপ্নের ফর্ম অব্যাহত। এযাবৎ জুভেন্তাসের হয়ে ৩৪ ম্যাচে তাঁর নামের পাশে লেখা হয়ে গিয়েছে ২৪ গোল। যার মধ্যে একমাত্র হ্যাটট্রিকটি সম্প্রতি এসেছে চ্যাম্পিয়নস লিগের রাউন্ড অফ ১৬’র ফিরতি লেগে। প্রথম লেগে আয়াক্সের বিরুদ্ধে ০-২ গোলে পিছিয়ে থেকেও দ্বিতীয় লেগে রোনাল্ডোর হ্যাটট্রিকে ভর করেই কোয়ার্টারের টিকিট নিশ্চিত করে জুভেন্তাস।