কলকাতা: প্রেমের এই সময়ে মনে রঙ লাগলেই মনটা হারিয়ে যেতে চায় সঙ্গীর সঙ্গে দূরে কোথাও। তবে সেই প্রেমের ভাষা বোঝাতে শুধু মন নয়, দরকার উপযোগী মেকআপও। আবার সঙ্গে দরকার পারফেক্ট পোশাক। সব মিলিয়ে আপনিও যেমন রোম্যান্সে হারিয়ে যাবেন, তেমন আপনার সঙ্গীও আপনার মধ্যে সেই প্যাশন খুঁজে পাবে। আপনার মুখের যে বিশেষ অংশগুলির সুনাম করেন আপনার প্রেমিক সেই অংশগুলিকে হাইলাইট করতে ভুলবেন না। কেমন হবে সেই মনোমুগ্ধকর সাজ? চিন্তা নেই। আপনার জন্যে রইলো ছোট ছোট কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস।

১. ঠোঁটে রাখুন প্রেমের ছোঁয়া লাল লিপস্টিকে। পোশাকে থাক কালো গাউন বা ফ্রক।

২. স্বপ্নের মতো মায়াবী লুক আনুন চোখে। নীল এবং সবুজের মিশেলে মারমেড আইশ্যাডো দিয়ে সাজান আপনার দুটি নয়ন যাতে সেই সাগরের গভীরতায় ডুবে যায় প্রেমিক। গিটার সঙ্গে নীল রঙের একটি চকচকে গাউন পরতে পারেন।

৩. চোখের পাতায় থাকুক গ্লিটার লুক। আইশ্যাডো হালকা বা ডিপ লাগাতে পারেন। তবে চোখের ঠিক মাঝামাঝি অংশে লাগান গ্লিটার। উজ্জ্বল লাগবে আপনার মুখও।

৪. ক্রিমি আইশ্যাডো দিয়েও হাইলাইট করতে পারেন আপনার চোখ। ক্রিমি বা লিকুইড আইশ্যাডো পাওয়া যায় আজকাল। তার সঙ্গে সফ্ট লুক আনতে পরুন ব্রাউন শেডের কাজল। তার সঙ্গে একটা রানী কালারের অফ শোল্ডার টপ ও স্ট্রেইট প্যান্ট থাকুক পরনে।

৫. ঠোঁটে থাকুক লাইট পিঙ্ক শেড। তার সঙ্গে চোখে খেলান ব্রাইট অরেঞ্জ আইশ্যাডোর ম্যাজিক। সব মিলিয়ে একটা ওয়ার্ম লুক দেবে। পোশাকটির সঙ্গে মানিয়ে পরুন গাঢ় হলুদ রঙের পিঠখোলা গাউন।

৬. ব্লাশ গালে লাগানোর সঙ্গে সঙ্গে একদম আঙুলের তালুতে নিয়ে লাগান নাকের ঠিক মাঝামাঝি অংশে। গোটাটাই একটা সফ্ট পিঙ্কিশ লুক দেবে আপনার মুখে। এর সঙ্গে ডিপ পিঙ্ক রঙের একটি ববি প্রিন্টার জাম্পস্যুট ট্রাই করতে পারেন।

৭. উইংকড আইলাইনার লাগাবেন এই সময়ে। এতে একটা মায়াবী ভাব আসে চোখে। যিনি দেখবেন আপনাকে তিনিও সেই মায়াবী জাদুকরী চোখের প্রশংসা না করে পারবেন না।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।