গাড়িটি দরজার সামনে আসতেই, বের হয়ে এলো কার্পেট। খুলে গেলো পাশের দরজা। সঙ্গে উপরের সানরুফ। ভেতরে অর্ধ গোলাকার একটি বসার সোফা। আর গাড়িটির সামনে সেই দামি লোগোটি। আপনি হয়তো ভাবছেন, কি এমন গাড়ি? রোলস রয়েস গাড়ির নাম নিশ্চয় শুনেছেন?

rolls-royce 1

আমেরিকার বিখ্যাত গাড়ি সংস্থা রোলস রয়েস নতুন এমন একটি গাড়ি তৈরি করতে যাচ্ছে যেটি পরবর্তী ১০০ বছর গাড়ির জগতে রাজত্ব্য করবে। ইতিমধ্যেই এমনটাই আশা প্রকাশ করা হয়েছে সংস্থার তরফ থেকে।

rolls-royce 2

গাড়িটির ফ্রন্ট সাইড দেখলে আপনার গাড়িটির সামনের চাকা খুঁজে পেতে কষ্ট হবে। গাড়িটির মডেল রোলস রয়েস ভিশন নেক্সট 100(103EX)। গাড়িটিতে কোন ড্রাইভিং সিট নেই। স্বনিয়ন্ত্রিত ভাবে গাড়িটি চলবে। গাড়িটির সামনের অংশটি বেশ প্রশস্ত। পিছনের সিটটি বেশ অনেকটা জায়গা জুড়ে বসানো হলেও এতে লাগেজ রাখার কোন সুবিধা নেই ভাবলে ভুল ভাবা হবে। লাগেজ রাখার জন্য গাড়িটির সাইডে রয়েছে সাইড বক্স।

rolls-royce 3

গাড়িটিকে বেশ আকর্ষণীয় করে বানানো হয়েছে। গাড়িটির কার্পেট শুধু গাড়ি থেকে নামতেই সহযোগিতা করবে না। এই কার্পেটটি আপনাকে রেড কার্পেটে হাঁটার অনুভূতিও দেবে।

গাড়িটির ইন্টেরিয়র এবং আউটডোর ডিজাইনে সর্বোচ্চ টেকনোলজির ব্যবহার করা হয়েছে। গাড়িটি এখনো কনসেপ্ট পর্যায়ে রয়েছে। গাড়িটিতে প্রবেশ করার পর গাড়িটি আপনাকে অভ্যর্থনাও জানাবে। গাড়িটির দাম কত হতে পারে এই নিয়ে এখনও পর্যন্ত কিছু জানা যায়নি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.