রাজকোট: ‘হিটম্যান’ মানেই রেকর্ডের ছড়াছড়ি৷ শুক্রবার এমনই এক রেকর্ডের সাক্ষী থাকল মহাত্মা গান্ধীর শহর৷ রাজকোটে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় ওয়ান ডে ম্যাচে অল্পের জন্য হাফ-সেঞ্চুরি হাতছাড়া হলেও বিশ্বরেকর্ডের অধিকারী হলেন রোহিত শর্মা৷

‘হিটম্যান’ মানেই রেকর্ডের ছড়াছড়ি৷ শুক্রবার এমনই এক রেকর্ডের সাক্ষী থাকল মহাত্মা গান্ধীর শহর৷ রাজকোটে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় ওয়ান ডে ম্যাচে অল্পের জন্য হাফ-সেঞ্চুরি হাতছাড়া হলেও বিশ্বরেকর্ডের অধিকারী হলেন রোহিত শর্মা৷

এদিন ওয়ান ডে ক্রিকেটে ৭০০০ রানের মাইলস্টোন টপকে যান রোহিত৷ শিখর ধাওয়ানের সঙ্গে ভারতীয় ইনিংস শুরু করেন রোহিত৷ দুই ওপেনারের ব্যাটে শুরুটা মন্দ হয়নি ভারতের৷ ওপেনিং জুটিতে ৮১ রান যোগে করেন রোহিত ও ধাওয়ান৷ তবে ইনিংসের ১৪তম ওভারে অ্যাডাম জাম্পার বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরেন রোহিত৷ ৪৪ বলে হাফ-ডজন বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ৪২ রানে আউট হন রোহিত৷

ড্রেসিংরুমে ফিরে যাওয়ার আগে অবশ্য ওয়ান ডে ক্রিকেটে ওপেনার হিসেবে দ্রুততম সাত হাজার রানের মাইলস্টোন টপকে যান ‘হিটম্যান’৷ সচিন তেন্ডুলকর ও হাশিম আমলাকে পিছনে ফেলে বিশ্বরেকর্ড গড়েন রোহিত৷ এই মাইলস্টোন টপকাতে ১৩৭টি ইনিংস খেলেন টিম ইন্ডিয়ার এই ডানহাতি ওপেনার৷ সাত হাজার রানের মাইলস্টোন টপকাতে রোহিতের থেকে ১০টি বেশি ইনিংস খেলেছিলেন প্রাক্তন প্রোটিয়া ওপেনার আমলা৷ আর রোহিতের থেকে ২৩টি ইনিংস বেশি খেলে অর্থাৎ ১৬০ ইনিংসে ওয়ান ডে ক্রিকেটে সাত হাজার রানের মাইলস্টোন টপকে গিয়েছিলেন সচিন৷

রোহিত এদিন চতুর্থ ভারতীয় ওপেনার হিসেবে ওয়ান ডে ক্রিকেটে ৭০০০ রানের মাইলস্টোন টপকান৷ এর আগে সচিন ছাড়াও সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও বীরেন্দ্র সেহওয়াগও ওপেনার হিসেবে এই মাইলস্টোন টপকেছেন৷

তবে অল্পের জন্য এদিন আরও একটি মাইলস্টোন ছুঁতে পারলেন না রোহিত৷ মাত্র ৪ রান করলেই ওয়ান ডে ক্রিকেটে ৯০০০ রানের মাইলস্টোন ছুঁতে পারতেন ‘হিটম্যান’৷ রোহিতের ওয়ান ডে কেরিয়ার শুরু হয়েছিল মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান হিসেবে৷ কিন্তু ২০১৩ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে রোহিতকে ওপেনার হিসেবে ব্যবহার করেন তৎকালীন ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি৷

এর জন্য ধোনিকে ধন্যবাদও দেন রোহিত৷ তাঁকে ওপেনার হিসেবে খেলানোর ধোনিকে কৃতিত্ব দিয়ে রোহিত জানিয়ে ছিলেন, ‘ধোনি আমাকে ওপেনার হিসেবে খেলানোর পর থেকেই আমার কেরিয়ারে পরিবর্তন আসে৷ তারপর থেকে আমি অনেক ভালো ব্যাটসম্যান হয়েছি৷ ম্যাচ বুঝতে অনেক সুবিধা হয়েছে৷ একদিন ধোনি আমাকে বলল, আমি চাই তুই ইনিংস ওপেন কর৷ আমি নিশ্চিত তুমি ভালো খেলবে কারণ তুই কাট ও পুল দু’টো শটই ভালো মারিস৷ ওপেনার হওয়ার সমস্ত গুণ তোর মধ্যে রয়েছে৷’