দুবাই: প্রত্যাশামতোই আইসিসি’র বর্ষসেরা ওয়ান-ডে ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন ভারতীয় ওপেনার রোহিত গুরুনাথ শর্মা। সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটে ডেপুটি রোহিত ছাড়াও আইসিসি’র বর্ষসেরার তালিকায় শিরোনামে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিও। ২০১৯ আইসিসি’র স্পিরিট অফ ক্রিকেটার অ্যাওয়ার্ড গেল বিরাটের ঝুলিতে। বর্ষসেরা টেস্ট ক্রিকেটার অজি পেসার প্যাট কামিন্স ও আইসিসি’র বর্ষসেরা ক্রিকেটার হয়ে স্যার গ্যারফিল্ড সোবার্স ট্রফি ছিনিয়ে নিলেন ইংল্যান্ড অল-রাউন্ডার বেন স্টোকস। বর্ষসেরা ওয়ান-ডে ও টেস্ট দলে জায়গা করে নেওয়ার পাশাপাশি দু’টি একাদশের অধিনায়ক নির্বাচিত হয়েছেন বিরাট কোহলি।

২০১৯ জাতীয় দলের ওপেনার রোহিত শর্মার কাছে ছিল অনেকটা স্বপ্নের মতো। টেস্ট এবং ওয়ান-ডে মিলিয়ে ২০১৯ ব্যাট হাতে ১০টি সেঞ্চুরি এসেছিল ‘হিটম্যানে’র ঝুলিয়ে। যার মধ্যে ৭টি পঞ্চাশ ওভারের ফর্ম্যাটে। ৭টি ওয়ান-ডে সেঞ্চুরির মধ্যে আবার ৫টি শতরান রোহিত হাঁকিয়েছিলেন বিগেস্ট ক্রিকেটিং ইভেন্ট বিশ্বকাপ ক্রিকেটে। শ্রীলঙ্কার কুমার সাঙ্গাকারার ৪টি সেঞ্চুরির নজির ছাপিয়ে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ২০১৯ বিশ্বকাপে পাঁচটি শতরান হাঁকান ডেপুটি রোহিত।

একইসঙ্গে কিংবদন্তি সচিন রমেশ তেন্ডুলকরের পর দ্বিতীয় ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে একটি বিশ্বকাপে ৬০০ বা তার বেশি রান করে নজির গড়া রোহিতের জন্য বর্ষসেরা ওয়ান-ডে ক্রিকেটার হওয়াটা একপ্রকার নিশ্চিতই ছিল। সেই প্রত্যাশাকে মান্যতা দিয়েই প্রথমবার আইসিসি বর্ষসেরা ওয়ান-ডে ক্রিকেটার হিসেবে নিজের নাম নথিভুক্ত করলেন রোহিত।

আইসিসি’র তরফে ঘোষিত ২০১৯ ওয়ান-ডে একাদশে রোহিতের পাশাপাশি জায়গা করে নিয়েছেন অবশ্যই অধিনায়ক বিরাট কোহলি, মহম্মদ শামি এবং কুলদীপ যাদব। তবে বর্ষসেরা টেস্ট একাদশে জায়গা হয়েছে কেবল দু’জন ভারতীয় ক্রিকেটারের। অধিনায়ক বিরাটের পাশাপাশি পাঁচদিনের দলে জায়গা করে নিয়েছেন ওপেনার ময়াঙ্ক আগরওয়াল। উল্লেখ্য, ২০১৯ শুরুতে অস্ট্রেলিয়া সফরে টেস্ট সিরিজে এই ভারতীয় ওপেনারের উত্থান দেখেছিল ক্রিকেটবিশ্ব। ২০১৯ ক্যালেন্ডার ইয়ারে ৫৯টি উইকেট শিকার করে আইসিসি বর্ষসেরা টেস্ট ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার পেস বোলিং সেনসেশন প্যাট কামিন্স।

আইসিসি’র বর্ষসেরা ক্রিকেটার হিসেবে ইংরেজ অল-রাউন্ডার বেন স্টোকসকে নির্বাচন করাটাও একেবারেই যথাযথ। ২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালে তাঁর মহাকাব্যিক ইনিংসে ভর করেই অধরা মাধুরি বিশ্বকাপের স্বাদ পেয়েছিল ইয়ন মর্গ্যানের ইংল্যান্ড। এরপর বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে অ্যাশেজে তাঁর অপরাজিত ১৩৫ রানের ইনিংসকে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম সেরা ইনিংস হিসেবে ব্যাখ্যা করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। দশম উইকেটে স্পিনার জ্যাক লিচের সঙ্গে তাঁর ৭৩ রানের জুটি ৩৫৯ তাড়া করে ইংল্যান্ডকে জয় এনে দেয়। সবমিলিয়ে ২০১৯ ক্রিকেটার হিসেবে বাইশ গজে নিজেকে নতুনভাবে প্রতিষ্ঠা করা স্টোকসের জন্য এই সম্মান একেবারেই যথাযথ বলা যায়।

অন্যদিকে স্যান্ডপেপার গেট কান্ডের জেরে বিশ্বকাপ চলাকালীন প্রাক্তন অজি অধিনায়ক স্টিভ স্মিথের উদ্দেশ্যে গ্যালারি থেকে ভেসে আসা বিদ্রুপ সামাল দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। কোহলির এই আচরণ তাঁকে এনে দিল আইসিসি’র সম্মান। এই ঘটনায় ২০১৯ আইসিসি’র স্পিরিট অফ ক্রিকেটার অ্যাওয়ার্ড গেল বিরাটের ঝুলিতে।