রাঁচি: মহেন্দ্র সিং ধোনির শহরে বিরাট কোহলি ব্যর্থ হলেও সেঞ্চুরি করে ভারতকে টানছেন রোহিত শর্মা৷ ৯৫ রানে দাঁড়িয়ে ছক্কা হাঁকিয়ে সেঞ্চুরিতে পৌঁছন ‘হিটম্যান’৷ দলের ব্যাটিং বিপর্যয় সত্ত্বেও মাত্র ১৩০ বলে ১৩টি বাউন্ডারি ও চারটি ছয় মেরে শতরান করেন মুম্বইয়ের এই ডানহাতি৷

রোহিত ও অজিঙ্ক রাহানের ব্যাটে দু’শো রানের গণ্ডি টপকায় ভারত৷ সিরিজের তৃতীয় তথা শেষ টেস্টে টস জিতে ভারত ব্যাটিং নিলেও শুরুটাা ভালো হয়নি বিরাটদের৷ আগের টেস্টে সেঞ্চুরিকারী ময়াঙ্ক আগরওয়াল এবং ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকানে ক্যাপ্টেন কোহলিকে দ্রুত প্যাভিলিয়নের রাস্তা দেখিয়ে ভারতকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেন প্রোটিয়া বোলাররা৷

মাত্র ৩৯ রানে তিন উইকেট হারায় ভারত৷ সিরিজের প্রথম টেস্টে বিশাখাপত্তনমে ডাবল সেঞ্চুরি এবং পুণেতে দ্বিতীয় টেস্টে সেঞ্চুরি হাঁকানো আগরওয়াল ব্যক্তিগত ১০ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন৷ কাগিসো রাবাদার বলে এলগারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ময়াঙ্ক৷ এর পর শূন্য রানে রাবাদার শিকার চেতেশ্বর পূজারা৷ পুণেতে আগের টেস্টে ২৫৪ রানের ইনিংস খেলা কোহলি ব্যক্তিগত ১২ রানে নর্টজের বলে এলবিডব্লিউ হন৷

কিন্তু এখান থেকে দলের হাল ধরে বিরাটের ডেপুটি রাহানে ও হিটম্যান৷ চতুর্থ উইকেটে অবিভক্ত দেড়শো রানের পার্টনারশিপ গড়ে ভারতকে দু’শো রানে পৌঁছে দেন রাহানে ও রোহিত৷ চা-বিরতিতে ৩ উইকেটে ২০৫ রান তুলেছে ভারত৷ দুরন্ত ফর্মে থাকা রোহিত সিরিজের তৃতীয় সেঞ্চুরি পূর্ণ করে ১০৮ রানে ক্রিজে রয়েছেন৷ আর ৭৪ রানে ব্যাটিং করছেন রাহানে৷

বিশাখাপত্তনমে সিরিজের প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে স্বপ্নের প্রত্যাবর্তন করেন ‘হিটম্যান’৷ পুণেতে বড় রান করতে না-পারলেও রাঁচিতে এদিন কঠিন পরিস্থিতিতে সেঞ্চুরি করে টেস্ট দলে নিজের জায়গা পাকা করে ফেলেন সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বিরাটের ডেপুটি৷ এটি রোহিতের ষষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরি৷ ২০১৩ ইডেনে টেস্ট অভিষেকে সেঞ্চুরি নজর কাড়লেও পাঁচদিনের ফর্ম্যাটে নিজের জায়গা কখনও পাকাপক্ত করতে পারেননি ‘হিটম্যান’৷ বিশ্বকাপের স্বপ্নের ফর্মে থাকা রোহিতকে ক্যারিবিয়ান সফরেও টেস্ট খেলায়নি টিম ম্যানেজমেন্ট৷ কিন্তু প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে প্রত্যাবর্তনেই ব্যাট হাতে সমালোচকদের জবাব দেন রোহিত৷

এদিন রাঁচির জেএসসিএ স্টেডিয়ামে টস ছিল অভিনব৷ বরং বলা ভালো টসের লাইন-আপটা ছিল অভিনব। যদিও দক্ষিণ আফ্রিকার এই অভিনব প্রচেষ্টাও ফলপ্রসূ হয়নি। প্রক্সি অধিনায়কেও টস ভাগ্য বদলায়নি দক্ষিণ আফ্রিকার। সিরিজে আরও একবার বিরাট কোহলির কাছে টস হারতে হয় প্রোটিয়াদের। উপমহাদেশে টানা ৯টি ম্যাচে টস হেরেছেন ফ্যফ ডু’প্লেসি। তাই লোক বদলে ভাগ্য বদলাতে চেয়েছিলেন প্রোটিয়া দলনায়ক। তাই এদিন তেম্বা বাভুমাকে সঙ্গে নিয়ে টস করতে নামেন তিনি। যদিও বাভুমাও টস জেতাতে পারেননি দক্ষিণ আফ্রিকাকে।

রাঁচি টেস্টের প্রথম একাদশে রদবদল করে দু’দলই। খটখটে পিচে বাড়তি পেসারের প্রয়োজন নেই বুঝেই ভারত এই ম্যাচে বিশ্রাম দেয় অভিজ্ঞ ইশান্ত শর্মাকে। তাঁর পরিবর্তে টেস্ট ক্যাপ তুলে দেওয়া হয় স্থানীয় বাঁ-হাতি স্পিনার শাহবাজ নাদিমের হাতে। ম্যাচের একদিন আগেই আহত কুলদীপের ব্যাক-আপ হিসেবে ভারতীয় স্কোয়াডে ঢুকেছিলেন নাদিম। এদিন দেশের ২৯৬তম খেলোয়াড় হিসেবে টেস্ট অভিষেক হয় ঝাড়খণ্ডের এই বাাঁ-হাতি স্পিনারের৷