ম্যাঞ্চেস্টার: ধাওয়ান চোট পেয়ে ছিটকে যাওয়ায় পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতকে মাঠে নামতে হয় নতুন ওপেনিং জুটি নিয়ে৷ তবে সেই নতুন ওপেনিং জুটিই বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধ নতুন রেকর্ড গড়ে৷

রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুলের ওপেনিং জুটি ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে শতরানের গণ্ডি পার করিয়ে দেয় ভারতকে৷ তবে তার আগেই নতুন নজির গড়ে তারা৷ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের ইতিহাসে এটিই ভারতের সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটি৷ রোহিতরা ভেঙে দেন সচিন তেন্ডুলকর ও নভজ্যোৎ সিং সিধুর গড়া ৯৬ বিশ্বকাপের রেকর্ড৷ সচিন ও সিধুর ৯০ রানের পার্টনারশিপই এতদিন বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের সর্বোচ্চ ওপেনিং পার্টনারশিপ ছিল৷ রোহিত-লোকেশ সেটাকে দীর্ঘায়িত করে নতুন ইতিহাস গড়েন৷ শেষমেশ প্রথম উইকেটের জুটিতে ১৩৬ রান তুলে আউট হন লোকেশ৷

আরও পড়ুন: ভারত-পাক ম্যাচে স্পেশাল আউটিফিটে গেইল

এই নিয়ে বিশ্বকাপের ইতিহাসে মোট সাত বার মুখোমুখি লড়াইয়ে নামে ভারত-পাকিস্তান৷ চারবার ইনিংসের ওপেন করতে নামেন সচিন তেন্ডুলকর (১৯৯৬, ১৯৯৯, ২০০৩, ২০১১) ৷ দু’বার করে ইনিংসের গোড়াপত্তন করেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ (২০০৩ ও ২০১১) ও রোহিত শর্মা (২০১৫ ও ২০১৯)৷

আরও পড়ুন: মহারণের আগে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে ‘বিরাট’ বার্তা

১৯৯২ সালে প্রথমবার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপ ম্যাচে শ্রীকান্তের সঙ্গে ওপেন করেন অজয় জাদেজা৷ দু’জনে মাত্র ২৫ রান যোগ করেন স্কোর বোর্ডে৷ ১৯৯৬ সালে সচিন-সিধু ওপেন করে ৯০ রান তোলেন৷ ১৯৯৯ সালে তেন্ডুলকর ও রমেশ ওপেনিং জুটিতে ৩৭ রান যোগ করেন৷ ২০০৩ সালে সচিন-সেহওয়াগ জুটি ৫৩ রানের ওপেনিং পার্টনারশিপ গড়ে৷ ২০০৭ বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ছিল না সূচিতে৷ ২০১১ সালে সচিন-সেহওয়াগ জুটি ৪৮ রান তোলে৷ ২০১৫ বিশ্বকাপে রোহিত-ধাওয়ানের ওপেনিং জুটি ৩৪ রান যোগ করে৷ এবার রোহিত ও লোকেশ রাহুল যোগ করেন ১৩৬ রান৷

আরও পড়ুন: একনজরে বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান বিগত সাক্ষাৎকারের ফলাফল

ম্যাঞ্চেস্টারে লোকেশ আউট হন ব্যক্তিগত ৫৭ রানে৷ ৭৮ বলের ইনিংসে তিনি ৩টি চার ও ২টি ছক্কা মারেন৷ রোহিত শর্মা পূর্ণ করেন ব্যক্তিগত শতরান৷ ভারত ৩০ ওভারের শেষে ১ উইকেটের বিনিময়ে ১৭২ রান তুলেছে৷ রোহিত অপরাজিত ১০০ রানে৷ অধিনায়ক বিরাট কোহলি কোহলি ব্যাট করছেন ৯ রান করে৷ শিখর ধাওয়ানের পরিবর্তে ম্যাঞ্চেস্টারে বিশ্বকাপ অভিষেক হয় বিজয় শঙ্করের৷