নয়াদিল্লি: প্রাক্তন বিএসএফ জওয়ান তেজ বাহাদুর যাদবের ছেলের আত্মহত্যার ঘটনায় চাঞ্চল্য৷ সেনাদের কি মানের খাবার খেতে দেওয়া হয় তা ভিডিও করে বিতর্কের শিরোনামে উঠে এসেছিলেন তেজ বাহাদুর যাদব৷ যার ফলে তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়৷ তারই লাইসেন্স রিভলভার দিয়ে নিজেকে গুলি করে ছেলে, নাম, রোহিত কুমার৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় স্থানীয় পুলিশ এবং এফএসএল-এর দল৷

জানা গিয়েছে, রোহিত কুমার দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল৷ বর্তমানে তেজ বাহাদুর প্রয়াগরাজে কুম্ভ স্নানে এসেছেন৷ ওদিকে রোহিত তার বাবার রিভলভার দিয়ে আত্মহত্যাই করেছে বলে প্রাথমিক অনুমান৷ ঘটনার সময় বাড়িতে রোহিত একা ছিল৷ কেন এমন একটি পদক্ষেপ নিল রোহিত, সেই তদন্তেই নেমেছে পুলিশ৷

প্রসঙ্গত, একসময় তেজ বাহাদুর যাদবের ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল৷ খালি পেটে দেশ রক্ষার কাজ করতে হয় জওয়ানদের। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে ফাঁস করে দেন বিএসএফের জওয়ান তেজ বাহাদুর যাদব। তাঁর ভিডিও ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়া তো বটেই, নড়েচড়ে বসে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের নির্দেশ দেন রাজনাথ সিং। কিন্তু তার আগেই রাতারাতি তাঁকে মদ্যপ বলে চিহ্নিত করে বিএসএফ। শুধু তাই নয়, তদন্তের স্বার্থে তেজ বাহাদুরকে অন্যত্র সরানোর কথা বলেন বিএসএফের আইজি ডি কে উপাধ্যায়।

পাহাড়ি এলাকায় প্রতিকূল পরিস্থিতিতে কর্মরত জওয়ানদের দুঃখদুর্দশা তুলে ধরে তিনি কয়েকটি ভিডিও পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিওতে যাদব অভিযোগ করেন, বিএসএফের উচ্চ পদস্থ আধিকারিকরা তাঁদের জন্য বরাদ্দ খাদ্যসামগ্রী (গম, চাল, ডাল) বাজারে বিক্রি করে দেন। এই কথা প্রকাশ্যে আসার পরই বিএসএফ ছাউনি থেকে তাঁকে হেডকোয়ার্টারে বদলি করা হয়। তারপর দেওয়া হয় মিস্ত্রির কাজ, জানিয়েছেন তেজ বাহাদুর। যদিও বিএসএফের দাবি, ওই জওয়ান অস্ত্র-সহ ভিডিও পোস্ট করেছিলেন। যা বাহিনীর শৃঙ্খলা-বিরুদ্ধ।