লন্ডন: শুরুর আগেই বিতর্ক দেখা দিল উইম্বলডনে৷ বাছাই তালিকা নিয়ে স্পষ্ট ক্ষোভ প্রকাশ করলেন সদ্য ফরাসি ওপেনজয়ী রাফায়েল নাদাল৷ তবে বাছাইয়ে ভারসাম্য রাখতে নিজেদের মতো ফর্মুলা অনুসরণ করার স্বত্ব উইম্বলডন কর্তৃপক্ষের হাতে থাকায়, প্রতিবাদী হওয়ার উপায় নেই নাদালদের সামনে৷

এবছর উইম্বলডনে বাছাই তালিকা তৈরির ক্ষেত্রে এটিপি ব়্যাংকিংকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি৷ বরং গত ২৪ মাসে সেরা ৩২ জন এটিপি তারকার ঘাসের কোর্টের সার্বিক পারফরম্যান্সকে একক করা হয়েছে৷ ফলে বিশ্বের দু’নম্বর তারকা হওয়া সত্ত্বেও উইম্বলডনে তৃতীয় বাছাই হিসাবে কোর্টে নামতে হবে নাদারকে৷ ব়্যাংকিংয়ের তৃতীয় স্থানে থাকা আট বারের উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন ফেডেরার খেলতে নামবেন দ্বিতীয় বাছাই হিসাবে৷

আরও পড়ুন: হ্যাল ওপেনের দশম খেতাব ফেডেরারের

বিশ্বব়্যাংকিংয়ের এক নম্বরে থাকা গতবারের চ্যাম্পিয়ন নোভাক জকোভিচ যথারীতি শীর্ষ বাছাইয়ের মর্যাদা পেয়েছেন৷ যার অর্থ ফাইনালের আগে জোকার-ফেডেরার মুখোমুখি সাক্ষাতের কোনও সম্ভাবনা নেই৷ অন্যদিকে চ্যাম্পিয়ন হতে গেলে নাদালকে ফেডেরার ও জকোভিচের সম্ভাব্য বাধা টপকাতে হবে৷ নাদাল এমন বাছাই পদ্ধতিকে ‘সঠিক নয়’ বলে মন্তব্য করেন৷

একা নাদালই নন, এমন বাছাই পদ্ধতির জন্য ভুগতে হবে ফরাসি ওপেনের ফাইনালিস্ট ডমিনিক থিয়েমকেও৷ বিশ্বের চার নম্বর তারকা হওয়া সত্ত্বেও থিয়েম উইম্বলডনের কোর্টে নামবেন পঞ্চম বাছাই হিসাবে৷ গত বছরের রানার্স দক্ষিণ আফ্রিকার কেভিন অ্যান্ডারসন বিশ্বব়্যাংকিংয়ের আত নম্বরে থকা সত্ত্বেও উইম্বলডনে চতুর্থ বাছাইয়ের মর্যাদা পেয়েছেন৷ ফলে থিয়েমকে কোয়ার্টার ফাইনালেই প্রথম তিন জন বাছাই তারকার কোনও একজনের মুখোমুখি হতে হবে৷

আরও পড়ুন: ওসাকাকে সরিয়ে পয়লা নম্বর ফরাসি ওপেন জয়ী বার্টি

মেয়েদের বাছাই তালিকার ক্ষেত্রে অবশ্য ডব্লুটিএ ব়্যাংকিংকেই একক করা হয়েছে৷ মেয়েদের শীর্ষ বাছাই হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার অ্যাশলেই বার্টি৷ ব়্যাংকিং অনুযায়ী সেরেনা উইলিয়ামস কোর্টে নামবেন ১১তম বাছাই হিসাবে৷