প্যারিস: শেষবার ফরাসি ওপেন খেলতে নেমছিলেন ২০১৫ সালে৷ ২০১৬ সালে পিঠের চোটের জন্য রোলাঁ গারোর কোর্টে নামতে পারেননি সুইস কিংবদন্তি৷ পরের দু’বছর স্বেচ্ছায় নিজেকে ক্লে কোর্ট মরশুম থকে সরিয়ে রাখায় প্যারিসে পা দেননি ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী ফেডেক্স৷ অবশেষে দীর্ঘ চারবছর পর এবার রোলাঁ গারোয় খেলতে দেখা যাবে ২০০৯’এর চ্যাম্পিয়নকে৷

আরও পড়ুন: জোকারকে হারিয়ে কেরিয়ারের নবম ইতালিয়ান ওপেন জিতলেন নাদাল

এই মুহূর্তে বিশ্বের এক নম্বর তারকা নোভাক জকোভিচ এবার শীর্ষ বাছাইয়ের মর্যাদা পাচ্ছেন টুর্নামেন্টে৷ ১১ বারের ফরাসি ওপেন চ্যাম্পিয়ন রাফায়েল নাদাল দ্বিতীয় বাছাই হিসাবে কোর্টে নামবেন৷ স্বাভাবিকভাবেই জোকার ও রাফা সূচির দুই অর্ধে থাকবেন৷ যার অর্থ, ফাইনালের আগে জকোভিচ ও নাদালের মুখোমুখি লড়াইয়ের সম্ভাবনা নেই৷ লটারি না হওয়া পর্যন্ত ফেডেরার কোন অর্ধের সূচিতে থাকবেন, তা নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়৷

চলতি মাসের শুরুতে মাদ্রিদ ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছনোর পর ফেডেরারকে এবার ক্লে-কোর্টে ভালো ফল করার বিষয়ে আশাবাদী শোনায়৷ তিনি বলেন, ‘ক্লে কোর্টে খেলতে স্বচ্ছ্বন্দ বোধ করছি৷ নিজের খেলায় উপভোগ করছি৷’

আরও পড়ুন: প্রাইজ মানি বাড়ল ফরাসি ওপেনের

জকোভিচ এবার ফরাসি ওপেন খেলতে নামেবন কেরিয়ারের ১৬তম মেজর জয়ের লক্ষ্যে৷ তবে ২০১৬’র চ্যাম্পিয়নকে দ্বিতীয় ফরাসি ওপেন জিততে হলে নাদালের কড়া চ্যালেঞ্জ সামলাতে হবে৷ রোলাঁ গারোয় খেলতে নামার আগে জোকার ও রাফায়েল দু’জনেই ভালো মতো প্রস্তুতি সেরেছেন৷ জকোভিচ মাদ্রিদ ওপেনের খেতাব জিতেছেন মাসের শুরুতেই৷ নাদাল গত সপ্তাহে জিতেছেন ইতালিয়ান ওপেনের ট্রফি৷