নয়াদিল্লি: অন্ত্রে টিউমার৷ চিকিৎসার জন্য লন্ডনে যেতে চান রবার্ট বঢরা৷ বুধবার আদালতের কাছ থেকে চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতি চাইলেন সোনিয়ার জামাই৷

এদিন আদালতে তাঁর প্রেসক্রিপশন জমা দেন রবার্ট৷ এর আগে ইডির কাছে নিজের পাসপোর্ট ফেরতের জন্য আবেদন জানিয়েছিলেন কংগ্রেস সম্পাদিকা প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর স্বামী রবার্ট৷

আরও পড়ুন: মমতার পর মোদীর শপথে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত আরও এক মুখ্যমন্ত্রীর

জমি সংক্রান্ত কেলেঙ্কারি নিয়ে রবার্ট বঢরার বিরুদ্ধে তদন্ত করছে ইডি৷ সেই মামলারই এদিন শুনানি ছিল৷ রবার্টের আবেদনের ভিত্তিতে আদালত জানিয়েছে আগামী ৩রা জুন ফের এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি হবে৷

আদালতে এদিন বঢরার আইনজীবী কেটিএস তুলসি বলেন, তদন্ত যখনই প্রয়োজন হয়েছে বঢরা উপস্থিত ছিলেন৷ ফলে তাঁর মক্কেলের পাসপোর্ট ফিরে পাওয়া ও বিদেশ যাত্রার অনুমতি পাওয়া উচিত৷ পালটা ইডির খৌশলী বলেন, বঢরার তরফে আদালতে জমা করা প্রেসক্রিপশনে গত ১৩ মে তারিখের উল্লেখ রয়েছে৷ তবে কেন তা আগেই আদালতকে জানানো হল না৷ তাঁর প্রশ্ন, দেশে এই রোগের চিকিৎসা থাক সত্ত্বেও কেন দ্বিতীয় পরামর্শের জন্য বাইরে যেতে হবে?

আরও পড়ুন: পুলিশের নাম নোট করে রাখছে রাজ্য বিজেপি, বিস্ফোরক নেতা

এর আগে রবার্ট বঢরাকে আটবার ইডি-র জেরার মুখোমুখি হতে হয়েছে। কিন্তু নতুন করে বেশ কিছু তথ্য এসে পড়ায় নবম বারের জেরা প্রয়োজন হয়ে পড়ে৷ বৃহস্পতিবার সকালে সাড়ে দশটায় ভাদরাকে ইডি অফিসে আসতে বলা হয়েছে।

দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন জায়গায় তাঁর সম্পত্তি নিয়ে এখন তদন্ত চালাচ্ছে ইডি। নিম্ন আদালতের রায় অনুযায়ী, তাঁকে গ্রেফতার করতে পারবে না ইডি। এর বিরুদ্ধে দিল্লি হাইকোর্টে ইডি আবেদন জানিয়েছে। দিল্লি হাইকোর্ট বঢরাকে নোটিশ দিয়েছে। ১৭ জুলাই-এর মধ্যে সেই নোটিসের জবাব দিতে বলা হয়েছে। ততদিন ইডি তাকে গ্রেফতার করতে পারবে না। কিন্তু জেরা করতে পারবে।