নয়াদিল্লি: প্রথম একাদশে সুযোগ না পাওয়ার জন্য কাউকে দোষারোপ করতে পারবে না ঋষভ পন্ত৷ বরং ও নিজেই দায়ি এমন পরিস্থিতির জন্য৷ এমনটাই মনে করেন ভারতের প্রথম বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক কপিল দেব৷

আগ্রাসী ব্যাটিংয়র জন্য সীমিত ওভারের ক্রিকেটের উপযোগী হলেও টেস্ট ক্রিকেটে চমকপ্রদ উত্থান প্রাথমিকভাবে ঋষভ পন্তকে ধোনির উত্তরসূরি হিসেবে তুলে ধরেছিল ভারতীয় ক্রিকেটমহলে৷ জাতীয় নির্বাচকরা প্রকাশ্যেই জানাতেন যে, তাঁরা পন্তকেই টিম ইন্ডিয়ার ভবিষ্যৎ উইকেটকিপার হিসেবে বিবেচনা করছেন৷ টিম ম্যানেজমেন্টও ক্রমাগত পন্তেই আস্থা রাখত একটা সময়৷

আরও পড়ুন: বিগ ব্যাশ ফাইনালের আগে ব্যাট হাতে মাঠ মাতাবেন যুবরাজ

তবে সাম্প্রতিককালে ঋষভ পন্তে মোহভঙ্গ হতে শুরু করেছে টিম ম্যানেজমেন্টের৷ টেস্ট দলে ঋদ্ধিমান সাহার ছায়ায় ঢাকা পড়ে গিয়েছেন পন্ত৷ ওয়ান ডে ক্রিকেটে ব্যাট হাতে মন্দ পারফর্ম্যান্স না করলেও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে গত সিরিজের প্রথম ম্যাচে হেলমেটে বল লাগার পর লোকেশ রাহুল উইকেটকিপাররের ভূমিকায় অবতীর্ণ হন৷ উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান হিসেবে রাহুলের পারফরম্যান্স টিম ম্যানেজমেন্টকে খুশি করায় এবার টি-২০ দলেও আড়ালে চলে যেতে হয় ঋষভকে৷

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ওয়ান ডে সিরিজের পর এবার নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজের প্রথম দু’টি টি-২০ ম্যাচেও লোকেশ রাহুল উইকেটকিপারের দায়িত্ব পালণ করেন৷ রাহুলকে উইকেটকিপার হিসেবে ব্যবহার করায় একজন বাড়তি অল-রাউন্ডার খেলানোর সুযোগ পাচ্ছে টিম ইন্ডিয়া৷ এতে দলের ভারসাম্য নিঃসন্দেহে বেড়েছে৷ প্রাথমিক সাফল্যের দিকে তাকিয়ে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে কেএলকেই পাকাপাকিভাবে উইকেটকিপার হিসেবে ব্যবহার করতে চাইছে টিম ম্যানেজমেন্ট৷

আরও পড়ুন: যুব বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে ভারতের সামনে কঠিন লড়াই

এই অবস্থায় জাতীয় দলে ঋষভ পন্তের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে৷ স্কোয়াডে থাকলেও মাঠে নামার সুযোগ মিলছে না তাঁর৷ কপিল মনে করেন এমন পরিস্থিতির জন্য দায়ি পন্ত নিজেই৷ ঋষভের ক্রমাগত সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে না পারার দিকেই আঙুল প্রাক্তন অধিনায়কের৷

কপিল বলেন, ‘ক্রিকেটারদের উচিত নিজেদের খেলায় নজর দেওয়া৷ নিজেকে অপরিহার্য করে তুলে জাতীয় দল থেকে বাদ দেওয়া বা বিশ্রাম দেওয়ার কোনও রাস্তাই নির্বাচকদের সামনে খোলা রাখা উচিত নয়৷ পন্ত অত্যন্ত প্রতিভাবান৷ তবে এমন পরিস্থিতির জন্য ও নিজেই দায়ি৷ তাই ও কাউকে দোষ দিতে পারবে না৷ ওর উচিত নিজের কেরিয়ারের দিকে তাকানো৷ লোকেদের ভুল প্রমাণিত করার একটাই পথ ওর সামনে খোলা রয়েছে৷ সেটা হল ক্রমাগত রান করে যাওয়া৷ যদি আপনার মধ্যে প্রতিভা থাকে, তবে নিজেকে প্রমাণ করার দায়িত্ব আপনাকেই নিতে হবে৷’

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প