ম্যাঞ্চেস্টার: বিলেতের মাটিতে লড়াই দুই এশীয় শক্তির। অর্থাৎ এককথায় যাকে বলে ‘মার্কি ক্ল্যাশ’। রবিবাসরীয় ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ভারত-পাকিস্তান মহারণের আগে শুক্রবারই ম্যাঞ্চেস্টার পৌঁছে গিয়েছেন শিখর ধাওয়ানের ‘কভার’ হিসেবে ইংল্যান্ডে উড়ে যাওয়া ঋষভ পন্ত। ম্যাঞ্চেস্টারের রাস্তায় শিকাগো নিবাসী পাকিস্তানি ফ্যান বশির চাচার সঙ্গে বাক্য বিনিময় করতেও দেখা যায় তরুণ এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানকে। এরপর শনিবার একেবারে দলের সঙ্গে অনুশীলনে নেমে পড়লেন পন্ত।

মহারণের ঠিক আগেরদিন ভারতীয় দলের সঙ্গে চুটিয়ে অনুশীলন করলেন দিল্লির তরুণ এই উইকেটরক্ষক ব্য্যাটসম্যান। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে মেঘলা আবহাওয়ায় দলের অনুশীলনে পন্তের যোগ দেওয়ার ছবি পোস্ট করা হয় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অফিসিয়াল টুইটার পেজে। এরপর অনুশীলনে মহেন্দ্র সিং ধোনির সঙ্গে আলাদা সময় ব্যয় করতেও দেখা যায় পন্তকে। সঙ্গে ছিলেন ছিলেন দীনেশ কার্তিকও। শিখর ধাওয়ান পুরোপুরি ছিটকে না গেলে টুর্নামেন্টে পন্তের সুযোগ পাওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু যে কোনও মুহূর্তের জন্য নিজেকে তৈরি রাখছেন পন্ত। তাই ম্যাঞ্চেস্টারে পৌঁছে কোনওভাবেই সময় নষ্ট করতে রাজি নন তিনি।

তবে ম্যাঞ্চেস্টার পৌঁছে শুক্রবার সোশাল মিডিয়ায় নিজের একটি রিল্যাক্স মুডের ছবি পোস্ট করেন পন্ত। ক্যাপশন হিসেবে সেখানে তিনি লেখেন ‘আফটারনুন টি’ অর্থাৎ বিকেলের চা-পান। নীচে লোকেশন হিসেবে ম্যাঞ্চেস্টার, যুক্তরাজ্য লেখা দেখে অনুরাগীরদের বুঝতে অসুবিধা হয় না যে মহারণের আগে যুদ্ধক্ষেত্রে হাজির হয়ে গিয়েছেন পন্ত। তবে যেহেতু দলের সঙ্গে এক হোটেলে থাকা কিংবা দলের সঙ্গে ট্র্যাভেল করার অনুমতি নেই তাঁর, তাই একাই ম্যাঞ্চেস্টারের হোটেলে রয়েছেন তিনি।

এরপর ম্যাঞ্চেস্টারের রাস্তায় পাকিস্তানি ফ্যান মহম্মদ বশির অর্থাৎ ‘চাচা চিকাগো’র সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন পন্ত। সেখানে হাসিমুখে দুজনকে বাক্য বিনিময় করতেও দেখা যায়। ৯ জুন ওভালে হাইভোল্টেজ ভারত-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে বাঁ-হাতের বুড়ো আঙুলে চোট পেয়ে বসেন শিখর ধাওয়ান। কুল্টার-নাইলের লাফিয়ে ওঠা ডেলিভারিতে চোট পান ভারতীয় ওপেনার। পরে স্ক্যান রিপোর্টে আঙুলে হেয়ারলাইন ফ্র্যাকচার ধরা পড়ায় প্রাথমিকভাবে নিউজিল্যান্দ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান ম্যাচ থেকে ছিটকে যান গব্বর। কিন্তু বিসিসিআইয়ের তরফ থেকে জানানো হয়, ধাওয়ান দলের সঙ্গেই মেডিক্যাল তিমের তত্ত্বাবধানে থাকবেন। তবে টুর্নামেন্ট থেকেও তাঁর ছিটকে যাওয়ার আশঙ্কা থাকায় ‘কভার’ হিসেবে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয় পন্তকে।

প্রাথমিকভাবে বিশ্বকাপের ১৫ জনের দলে ঋষভ পন্তকে সুযোগ দেননি এমএসকে প্রসাদের নেতৃত্বাধীন নির্বাচক কমিটি। পরিবর্তে অভিজ্ঞ হিসেবে দলে সুযোগ পান দীনেশ কার্তিক। যা নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি বিভিন্ন মহলে। অবশেষে ধাওয়ানের চোটে এই তরুণ তুর্কির বিশ্বকাপ খেলার স্বপ্ন সত্যি হয় কীনা, এখন সেটাই দেখার।