হামলাকারী নয়নের এই ছবিটি প্রকাশ করা হয়েছে।

ঢাকা:  প্রকাশ্যে জনবহুল রাস্তায় রামদা দিয়ে কুপিয়ে কুপিয়ে এক যুবককে খুনের ঘটনায় প্রবল আলোড়িত বাংলাদেশ৷ ছড়িয়েছে ভয়৷ কারণ খুনি যুবক ও তার সাগরেদরা এখনও অধরা৷ যেভাবে সবাই মিলে এলোপাথাড়ি কোপ মেরে নব্য বিবাহিত যুবক রিফাতকে খুন করেছে তার ছবি ভাইরাল৷ খুনির ছবিও প্রকাশ্যে এসেছে তার নাম নয়ন৷ ধারণা করা হচ্ছে খুনিরা বাংলাদেশ সীমান্তের সুন্দরবন পেরিয়ে পশ্চিমবঙ্গে ঢুকে পড়ার তালে রয়েছে৷ আসামিরা যাতে দেশ ছেড়ে পালাতে না পারে সে জন্য সীমান্তে সতর্কতা জারি করতে বলল হাইকোর্ট৷

বুধবার বাংলাদেশের বরগুনায় প্রকাশ্যে স্ত্রীর সামনে স্বামী রিফাত শরিফকে কুপিয়ে খুন করে নয়ন ও কয়েকজন৷ সবাই দেখলেও কেউ এগিয়ে আসেননি সাহায্যে৷ আর আক্রান্ত যুবকের স্ত্রী একাই লড়াই করেছিলেন স্বামীকে বাঁচানোর জন্য৷ পরে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে বরিশাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ প্রবল রক্তক্ষরণে সেখানেই মারা যান রিফাত৷

গোটা ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ তদন্ত শুরু হলেও নয়ন অধরা৷ মনে করা হচ্ছে, বরগুণার সংলগ্ন সুন্দরবন বা বাংলাদেশের অন্য কোনও সীমান্ত দিয়ে খুনিরা ভারতে ঢুকে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছে৷ সেক্ষেত্রে তারা পশ্চিমবঙ্গকে বেছে নিতে পারে৷ খুনিদের ছবি প্রকাশ হওয়ার পরেও তারা কেন অধরা এই প্রশ্ন তুলে আদালত জানিয়েছে, এই ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর যতটা তৎপর হওয়া উচিত ছিল, তা মনে হয় হয়নি। বরগুনার পাশে সুন্দরবন ও তার পাশে সীমান্ত রয়েছে। আসামিরা যাতে সীমান্ত অতিক্রম করতে না পারে সে জন্য পুলিশের আইজিপিকে পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হল।

এদিকে নিহত রিফাতের পরিবার ও তাঁর স্ত্রী মিন্নির করা অভিযোগের ভিত্তিতে ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে৷ একজন ধৃত৷ আদালতের তরফে নিহতের স্ত্রী ও স্বজনদের নিরাপত্তা দিতে বলা হয়েছে।