ঢাকা: স্ত্রীর সামনেই প্রকাশ্য রাস্তায় কুপিয়ে খুন করা হয়েছিল স্বামী রিফাত শরিফকে৷ বাংলাদেশের বরগুনার এই ঘটনায় রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে৷ মঙ্গলবার রিফাত শরিফকে কুপিয়ে খুনের ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত সাব্বির আহমেদ নয়ন, যিনি ‘নয়ন বন্ড’ নামে পরিচিত, তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ পুলিশের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে তার মৃত্যু হয়৷

বরগুনা সদর থানার কর্তব্যরত আধিকারিক আবির মহম্মদ হোসেন জানান, বরগুনার পূর্ব বুড়িরচর গ্রামে ভোররাত চারটে নাগাদ এই ঘটনা ঘটে৷ মহম্মদ হোসেন বলেন গোপন সূত্রে খবর পেয়ে নয়ন বন্ডকে গ্রেফতার করার জন্য অভিযান চালায় পুলিশ৷ এই অভিযানের নেতৃত্ব দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশরাফুল্লাহ তাহের৷

পূর্ব বুড়িরচর গ্রামে শুরু হয় পুলিশ তল্লাশি৷ তবে তল্লাশি চলাকালীনই আচমকাই পুলিশকে লক্ষ্য করে বেশ কয়েকজন গুলি ছুঁড়তে শুরু করে বলে অভিযোগ৷ এ সময় পুলিশ পাল্টা গুলি চালালে একজনের মৃত্যু হয়৷ পরে মৃতদেহ শনাক্ত করে দেখা যায় নিহত ব্যক্তিই অভিযুক্ত নয়ন বন্ড৷

পুলিশ আধিকারিক মহম্মদ হোসেন জানিয়েছেন, এই গুলির লড়াইয়ে চারজন পুলিশ কর্মীও আহত হন৷ তাদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভরতি করা হয়৷

২৬শে জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে নেয়াজ রিফাত শরিফ নামে এক যুবককে প্রকাশ্যে কুপিয়ে খুন করা হয়৷ গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে, চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন৷ এর পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় রিফাতের খুন হওয়ার ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে৷ বাংলাদেশ জুড়ে শুরু হয় হইচই৷

পরে নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজি সহ ১২জনের বিরুদ্ধে ২৭ জুন খুনের মামলা দায়ের করেন রিফাত শরিফের বাবা মহম্মদ আবদুল হালিম দুলাল শরিফ। অভিযোগ পেয়েই খুনের তদন্ত শুরু করে পুলিশ৷