মুম্বই: শেষ হলো রিয়া চক্রবর্তীর বিচারবিভাগীয় হেফাজতে থাকার মেয়াদ। কিন্তু এখনই ছাড়া পাচ্ছেন না তিনি। আগামী ৬ অক্টোবর পর্যন্ত বাইকুল্লা জেল হেফাজতে থাকবেন রিয়া। গত ৮ সেপ্টেম্বর মাদক থাকার অভিযোগে রিয়া চক্রবর্তী এবং তার ভাই শৌভিক চক্রবর্তী কে গ্রেফতার করে নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো।

এনসিবির জিজ্ঞাসাবাদ চলাকালীন রিয়া স্বীকার করেন যে তিনি মাদক কিনেছেন এবং মাদকের জোগান রেখেছেন। কিন্তু সঙ্গে তিনি এও জানিয়েছেন যে নিজে কখনো মাদক নেননি। তাপসী পান্নু একটি সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদন শেয়ার করেছেন যেখানে বলা হয়েছে যে রিয়া নিজে কখনো মাদক নেননি। যদিও ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায় সুশান্তের সঙ্গে মাদক সেবন করছেন রিয়া চক্রবর্তী।

মহিলাদের জেলে রয়েছেন রিয়া। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, রিয়া জেলের যেই কক্ষে রয়েছেন সেখানে নেই একটি বিছানাও। এমনকি ওই কক্ষে সিলিং ফ্যানও নেই।

রিয়ার পাশের কক্ষেই রয়েছেন মেয়ে শিনা বোহরা হত্যাকাণ্ডের মূল অভিযুক্ত ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়। তবে একটি সিঙ্গল সেলে রয়েছেন রিয়া। নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে সেই কক্ষে শুধুমাত্র রিয়ার একার থাকার ব্যবস্থা হয়েছে।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মামলায় তিনি প্রধান অভিযুক্ত। কিন্তু মাদক যোগের কারণে গ্রেফতার করা হয়েছে রিয়াকে। কিন্তু জেল কর্তৃপক্ষের আশঙ্কা তাঁর সঙ্গে একই কক্ষে অন্য বন্দিদের রাখলে তাঁরা রিয়ার উপর হামলা চালাতে পারে। আর তাই রিয়ার কক্ষের উপরে কড়া নজরদারি রাখা হচ্ছে। তাঁর কক্ষের বাইরে দুজন কনস্টেবল সবসময়ে রয়েছেন।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, রিয়াকে শোয়া ও বসার জন্য একটি মাদুর দেওয়া হয়েছে। তাঁকে তোষক, বালিশ বা চাদর কিছুই দেওয়া হয়নি।

প্রসঙ্গত, বম্বে হাইকোর্টে রিয়া চক্রবর্তী ও তাঁর ভাই শৌভিক চক্রবর্তী জামিনের জন্য আবেদন করেন ৷ সেই আবেদনের শুনানি ২৩ সেপ্টেম্বর ৷

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।