মুম্বই: সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ৬ দিন আগে অর্থাৎ ৮ জুন তাকে ছেড়ে চলে যান অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী। সেই দিনই আবার মৃত্যু হয় সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার সালিয়ানের। সুশান্ত এর মৃত্যুর তদন্ত এখন করছে সিবিআই। তদন্তে রিয়ার ফোন রেকর্ড দেখে জানা যাচ্ছে ৮ জুন থেকে ১৩ জুন পর্যন্ত পরিচালক-প্রযোজক মহেশ ভাটকে বেশ কয়েকবার ফোন করেছিলেন অভিনেত্রী।

টাইমস নাও এর প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, ৮ থেকে ১৩ জুন পর্যন্ত রিয়ার ফোন থেকে ১৬ বার ফোন গিয়েছে মহেশ ভাটের কাছে। এর পরেই ১৪ জুন বান্দ্রার ফ্ল্যাটে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় সুশান্ত সিং রাজপুতের।

সুশান্তের বাবা বিহার পুলিশের কাছে রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছেন। তার পরেই বিহার পুলিশ তদন্তে নামে। এরই মধ্যে রিয়াও সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন করেছিলেন ঘটনার তদন্ত বিহার থেকে মুম্বইয়ে স্থানান্তরিত করা হোক। এছাড়াও এই তদন্তের স্থগিতাদেশ চেয়ে ছিলেন রিয়া। কিন্তু অভিনেত্রীর ২ আবেদনই খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। এরপর ঘটনার তদন্ত হাতে যায় সিবিআইয়ের।

রিয়া চক্রবর্তী, ও তাঁর বাবা ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী, মা সন্ধ্যা চক্রবর্তী, ভাই শৌভিক চক্রবর্তী, স্যামুয়েল মিরান্ডা ও শ্রুতি মোদী সহ মোট ৬ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর করে সিবিআই। অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র, আত্মহত্যায় প্ররোচনা, চুরি, প্রতারণা-সহ আরও বেশ কয়েকটি অভিযোগে তারা অভিযুক্ত হয়েছেন।

এছাড়া রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে মানি-লন্ডারিংয়ের মামলা করেছে ইডি। সেই মর্মে সোমবার রিয়া ও তার ভাই সৌভিক চক্রবর্তী এবং বাবা ইন্দ্রজিত চক্রবর্তীকে দ্বিতীয় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করে ইডি। রিয়ার বার্ষিক আয় ১২-১৪ লক্ষ টাকা। তা সত্বেও কিভাবে মুম্বইয়ের ২ বিলাসবহুল জায়গায় তিনি প্রপার্টি কিনেছেন সেই বিষয়টিও খতিয়ে দেখছে ইডি।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও