ইন্টারনেট থেকে প্রাপ্ত ছবি৷

ইন্দোর: রাজনীতি সকাল ১০টা-৫টার সরকারি চাকরি নয়৷ দিনের ২৪ ঘণ্টাই মানুষকে পরিষেবা দিতে হয়৷ তাই সরকারি চাকরির মতো নির্দিষ্ট বয়সে রাজনীতি থেকে অবসর নেওয়ার যুক্তি খাটে না৷ এমনটাই মনে করেন লোকসভার বিদায়ী স্পিকার সুমিত্রা মহাজন৷

পচাত্তরোর্ধ্ব নেতাদের প্রার্থী করা যাবে না৷ বিজেপির এই নীতির সঙ্গে একমত নন সুমিত্রা মহাজন৷ এই মন্তব্যে সেটা পরিস্কার৷ যদিও তিনি জানান, দলের এই নীতির ব্যাপারে কিছু জানা নেই৷ উল্লেখ্য, এই শুক্রবার ৭৬ বছরে পা দেবেন সুমিত্রা৷

সুমিত্রা মহাজনের সঙ্গে বিজেপির সম্পর্ক বহু পুরানো৷ ১৯৮৯ সালে তিনি ইন্দোর লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী হন৷ জিতেও যান৷ তারপর আরও সাতবার এই কেন্দ্র থেকে জিতে সাংসদ হন৷ তবে এবার আর ভোটে দাঁড়াচ্ছেন না৷ আদবানি, মুরলি মনোহর যোশীর মতো সুমিত্রা মহাজন লোকসভা ভোটে না লড়ার কথা জানিয়ে দেন৷ তবে তাঁর সিদ্ধান্তের পিছনেও লুকিয়ে ছিল দলের প্রতি চাপা অসন্তোষ৷

সুমিত্রা নিজেই জানান, তাঁকে প্রার্থী করা নিয়ে দলের দ্বিধা ছিল৷ ভোটে প্রার্থী না হয়ে দলের অস্বস্তি তিনি নিজেই কাটিয়ে দিলেন৷ প্রবীণ নেতাদের ভোটে দাঁড় না করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি৷ ৯১ বছর বয়সী আদবানি ও দলের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য বরাবর গান্ধীনগর কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হয়ে আসছেন৷ এবার সেই আসনে লড়ছেন সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷

ফাইল ছবি৷

অন্যদিকে দলের আরও এক প্রবীণ নেতা ৮৫ বছর বয়সী মুরলী মনোহর যোশীকেও টিকিট দেয়নি দল৷ এই নিয়ে প্রবীণ নেতাদের মধ্যে ক্ষোভ পুঞ্জীভূত হতে থাকে৷ যখন তিনি মুখ খোলেন তখন বিস্ফোরণ ঘটান৷ জানান, দল তাঁকে নিজে থেকেই সরে যেতে বলেছে৷